ঢাকা, সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬
BYনারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস

পাঁচটি কার্তুজ উদ্ধারের মামলায় নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনিকে তৃতীয় দফায় দুই দিনের রিমান্ডে নিয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। এর আগে দুইটি অস্ত্র মামলায় টানা দ্বিতীয় দফায় পাঁচ দিন রিমান্ডে নেয়া হয়েছিল।

শনিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাহামুদুল মোহসীনের আদালতে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে ডিবি পুলিশ। পরে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান এর সত্যতা জানিয়ে বলেন, ছাত্রদল সভাপতি মশিউর রহমানকে ১৫ সেপ্টেম্বর পুলিশ তুলে নিয়ে গিয়ে ১৭ সেপ্টেম্বর অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার দেখিয়ে গ্রেপ্তার দেখায়। পরে অস্ত্র মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার দেখিয়ে তিন দিনের রিমান্ডে নেয়। রিমান্ড শেষে আরেকটি পাইপ গান উদ্ধার দেখিয়ে আরেকটি মামলা দায়ের করে দুই দিনের রিমান্ডে নেয়। এখন ডিবি পুলিশ কার্তুজ উদ্ধার দেখিয়ে মামলা দিয়ে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে। প্রতিটি ঘটনা একই স্থান থেকে দেখানো হয়। রনি শারীরিকভাবে অসুস্থ। এ অবস্থায় পুলিশ রিমান্ডে নিতে পারে না। কিন্তু আদালত দুই দিনের রিমান্ড দিয়েছেন। আমরা তারপরও আবেদন করে বলেছি রিমান্ডে নিলেও অন্তত দুইটা দিন পরে নেয়া হোক। আমরা আদালতে বিষয়গুলো তুলে ধরেছি। কিন্তু আবেদনটি নথিভুক্ত করে আজকেই তাকে রিমান্ডে নেয়া হলো। এখন আমরা কোথাও বিচার পাচ্ছি না বলে অভিযোগ করেন তিনি।

গত ২০ সেপ্টেম্বর তিন দিনের রিমান্ড শেষে নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনিকে আরেকটি অস্ত্র উদ্ধার দেখিয়ে আরেকটি অস্ত্র মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে একটি মামলা দায়ের করে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। ওই মামলায় আদালতে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে অদাালত দুই দিনের রিমান্ডে নেয় ডিবি পুলিশ।

পুলিশ দাবি করে-রিমান্ডের আসামি মশিউর রহমান রনিকে নিয়ে গত ২০ সেপ্টেম্বর ভোরে ফতুল্লা দাপা ইদ্রাকপুর ওরিয়ন গ্রুপের মাঠে একটি পাইপ গান উদ্ধার করে। পরে এসআই কামরুল ইসলাম বাদী হয়ে আরেকটি অস্ত্র মামলা দায়ের করে রনিকে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। এ মামলায় দুইদিনের রিমান্ডে নেয় ডিবি পুলিশ।

এর আগে গত ১৭ সেপ্টেম্বর বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাহামুদুল মোহসীনের আদালতে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ একটি বিদেশি অস্ত্র ও ৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার মামলায় ৭ দিনের রিমান্ডে আবেদন করলে আদালত ৩ দিনের রিমান্ডে মঞ্জুর করেন। তার কাছ থেকে একটি অস্ত্র ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয় বলে জানায় ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ।

রনির পরিবারের দাবি গত ১৫ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাতে নিখোঁজ হন রনি। তাকে ডিবি পুুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় বলেও দাবি করা হয়। এরপর গত ১৭ সেপ্টেম্বর সোমবার ভোরে ফতুল্লা দাপা ইদ্রাকপুর এলাকা থেকে মশিউর রহমান রনিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে দাবি করে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। তার কাছ থেকে বিদেশী একটি অস্ত্র ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের এসআই আব্দুল শাফিউল আলম বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।

ঢাকাটাইমস/২২সেপ্টেম্বর/প্রতিনিধি/ইএস