ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৭

যানজট কমাতে স্কুলবাস সার্ভিস চালু করছে সিসিক

https://www.jagonews24.com/country/news/506212
BYনিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট প্রকাশিত: ০৭:৫৭ পিএম, ১২ জুন ২০১৯

সিলেট নগরের স্কুলগুলোর ছাত্রছাত্রীদের আনা নেয়ার জন্য স্কুলবাস চালু করার উদ্যোগ নিয়েছে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)। প্রাথমিক পর্যায়ে সিলেট সিটি করপোরেশন পরিচালিত দুটি বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের পরিবহনের জন্য তিনটি বাস চালু করা হচ্ছে।

এ উদ্যোগে সফলতা পেলে নগরের অন্য স্কুলের শিক্ষার্থীদের জন্যও এ সেবা চালু করা হবে এমনটাই জানিয়েছে সিসিক কর্তৃপক্ষ।

সিসিকের গণসংযোগ কর্মকর্তা শাহাব উদ্দিন শিহাব বলেন, সিলেট নগরে দিনদিন বাড়ছে যানজট। এ যানজট আরও বাড়িয়ে তুলছে নগরের বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আনা নেয়ার জন্য ব্যবহৃত ব্যক্তিগত গাড়ি। তাই নগরের বড় ও নামি স্কুলগুলোর সামনে স্কুল শুরু ও ছুটির সময় লেগে থাকে অসহনীয় যানজট। যানজট কমিয়ে আনা ও স্কুল শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগ লাঘবে নগরে স্কুল বাস সার্ভিস চালুর উদ্যোগ নিয়েছে সিটি করপোরেশন।

সিসিক সূত্রে জানা যায়, স্কুল শুরুর আগে ও ছুটির পর শিক্ষার্থীদের আনা নেয়া করবে সিসিকের বাস। প্রাথমিক অবস্থায় এ জন্য ২৫ সিটের ৩টি বাস চালু করা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে সিলেট সিটি করপোরেশন পরিচালিত বিরেশচন্দ্র উচ্চবিদ্যালয় ও চারাদিঘিরপাড় উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আনা নেয়ার কাজে এ বাস ব্যবহার করা হবে। এ দুই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিনা ভাড়ায় যাতায়াত করতে পারবে। তবে বাস চলাচলের রুট এখনও চূড়ান্ত হয়নি বলে জানান সিসিকের কর্মকর্তারা।

ট্রাফিক পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে শিগগিরই সার্বিক বিষয়ে আলোচনা করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। প্রাথমিক উদ্যোগে সফলতা এলে নগরের অন্য স্কুলগুলোর জন্যও এ সার্ভিস চালু করা হবে বলে জানায় নগর কর্তৃপক্ষ।

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, নগরের স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে সিটি করপোরেশন থেকে স্কুলবাস সার্ভিস চালু করা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে সিটি করপোরেশন পরিচালিত দুটি বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের জন্য বাস সার্ভিস চালু হচ্ছে। পরবর্তীতে চাহিদা অনুযায়ী আরও কয়েকটি বাস চালুর পরিকল্পনা আছে। এ ব্যাপারে ট্রাফিক পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে সপ্তাহ খানেকের মধ্যে স্কুলবাস চালু করা হবে।

ছামির মাহমুদ/এমএএস/পিআর