ঢাকা, শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৭

এক জমি তিনবার বিক্রি, ভোগান্তিতে ২২ পরিবার

https://www.jagonews24.com/country/news/515354
BYজেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি গাজীপুর প্রকাশিত: ১০:৪৯ এএম, ২২ জুলাই ২০১৯

গাজীপুরে তিন মুক্তিযোদ্ধাসহ ২২টি পরিবারের জমি দখল করতে মরিয়া ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসী-প্রতারকচক্র। এমন অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বনখড়িয়া এলাকার ভুক্তভোগী ওই পরিবারগুলো। রোববার বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মুক্তিযোদ্ধা মো. জয়নাল আবেদীন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ১৯৮১ থেকে ১৯৮৬ সালের মধ্যে বিভিন্ন তারিখে প্রায় ১১ একর জমি ক্রয় করে ২২টি পরিবার বনখড়িয়া এলাকায় যুগের পর যুব বসবাস করে আসছেন। ওই এলাকার যোগেশের পরিবারের সকল সদস্য ১৯৮০ সালে ধর্মান্তরিত হয়ে মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করেন। তাদের কাছ থেকে বৈধভাবে জমি ক্রয় করে ভোগ দখল করে আসছিলেন তারা। কিন্তু যোগেশের স্ত্রী-সন্তানরা আবারও ২০০৩ সালে ধর্মান্তরিত হয়ে নতুন নাম ধারণ করে আগে বিক্রি করা জমি ফের অন্য একটি পক্ষের কাছে বিক্রি করে দেন।

বর্তমানে ধর্মান্তরিত ওই পরিবারটির কাছ থেকে তৃতীয় দফায় ওই জমি ক্রয় করেন ঢাকার এক ব্যবসায়ী আব্দুল হক। এখন আব্দুল হক এলাকাবাসীর ক্রয় করা জমি জোরপূর্বক দখল নিতে শুরু করেছেন।

স্থানীয় ইসলাম উদ্দিন বলেন, তাদের জমি দখল করতে আব্দুল হক ওই সম্পত্তিতে সন্ত্রাসী বাহিনী লেলিয়ে দিয়ে আমাদেরকে নানাভাবে হয়রানি করছেন। প্রভাব খাটিয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদেরকে জমি থেকে উচ্ছেদের নানা ফন্দি করছেন। জমির ভেতরে ভাড়া করা সন্ত্রাসীরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সশস্ত্র পাহারা দিচ্ছে। যেকোনো সময় ওই এলাকায় আইনশৃংখলা বিঘ্নিত হতে পারে।

এ ঘটনায় তারা আ. হকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় শ্রীপুর থানা ও গাজীপুর পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ পেশ করলেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেছেন।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে আব্দুল হক বলেন, তিনি ওই জমির প্রকৃত মালিক। জমির নামজারি ও জমাভাগ এবং খাজনা খারিজ তার নামে হয়েছে। কারো জমি জোর করে দখল বা হয়রানি করা হয়নি।

এ ব্যাপারে শ্রীপুর থানার এসআই মো. আশরাফুল ইসালাম জানান, জমিগুলো নিয়ে আদালতে মামলা চলমান। তাই শান্তিশৃংখলা বজায় রাখতে উভয় পক্ষকে নিজ নিজ অবস্থানে থাকতে বলা হয়েছে।

আমিনুল ইসলাম/এফএ/পিআর