ঢাকা, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১ পৌষ ১৪২৬
BY  যশোর ব্যুরো ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১:৪৪ | অনলাইন সংস্করণ
যশোর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা। ছবি: যুগান্তর সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে নৌকার বিজয় নিশ্চত করার বিকল্প কিছু নেই বলে মন্তব্য করেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভ্রাতুষ্পুত্র সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিন।

বৃহস্পতিবার বিকালে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

পৌর কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় শেখ হেলাল উদ্দিন দলীয় নেতাকর্মীদের বলেন, প্রাচীন ও বৃহত্তর দল হিসেবে আওয়ামী লীগের অনেকেই মনোনয়ন চেয়েছিলেন। কিন্তু মনোনয়ন পেয়েছেন প্রত্যেক আসনে একজন। আওয়ামী লীগের নৌকা মার্কাকে জয়ী করতে ঐক্যবদ্ধভাবে সবাইকে কাজ করতে হবে। সবাই কাজ না করলে জয় হবে না। এবারের নির্বাচনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হবে। জয়ী হলে আমরা সবাই বুক ফুলিয়ে চলতে পারব। জয়ী না হলে সেটি আমরা পারব না। তাই শেখ হাসিনার নৌকা মার্কাকে জয়ী করুন।

শেখ হেলাল উদ্দিন বলেন, অভিমান ভুলে যান, কে প্রার্থী হয়েছেন সেটি বড় কথা নয়। আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা। তার মার্কা নৌকা। তাই আমাদের নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে জয়ী করতে হবে। নৌকার জয় হলে শেখ হাসিনা আবারও প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন। শেখ হাসিনা পুনরায় প্রধানমন্ত্রী হলে বাংলাদেশ থেকে বিএনপি-জামায়াত চিরতরে নিশ্চিহ্ন হবে।

যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট পিযুষকান্তি ভট্টাচার্য্য, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান এমপি, কেন্দ্রীয় সদস্য এসএম কামাল হোসেন। বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার।

উপস্থিত ছিলেন যশোর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও প্রার্থী শেখ আফিল উদ্দিন, যশোর-২ আসনের প্রার্থী মেজর জেনারেল (অব.) অধ্যাপক ডা. নাসির উদ্দিন, যশোর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও প্রার্থী কাজী নাবিল আহমেদ, যশোর-৫ আসনের সংসদ সদস্য ও প্রার্থী স্বপন ভট্টাচার্য্য, যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য মনিরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা খয়রাত হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক ও বেনাপোল পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর জহুরুল হক, দফতর সম্পাদক মাহমুদ হাসান বিপু, জেলা যুবলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু, চৌগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম হাবিবুর রহমান, শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল হক মঞ্জু, মনিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী মাহমুদুল হাসান, কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিন, সহসভাপতি এইচএম আমীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফাসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা।

তবে আসন্ন সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে বর্ধিত সভার আয়োজন করা হলেও দুজন প্রার্থী অনুপস্থিত ছিলেন। তারা হলেন যশোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য রণজিত কুমার রায় ও যশোর-৬ আসনের সংসদ সদস্য জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক।