ঢাকা, রবিবার, ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

মাদকাসক্ত ছেলেকে হত্যার পর মাটিচাপা!

https://www.ntvbd.com/bangladesh/242439/মাদকাসক্ত-ছেলেকে-হত্যার-পর-মাটিচাপা!
BYমো. আলমগীর হোসেন, ভালুকা
১৪ মার্চ ২০১৯, ২৩:৩০

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার রাজৈ ইউনিয়নের উরাহাটি পশ্চিমপাড়া সুলতান মিয়ার বাড়ি থেকে বৃহস্পতিবার বস্তাবন্দি জসিম উদ্দিনের লাশ উদ্ধার করা হয়। ছবি : এনটিভি ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় মাদকাক্ত ছেলেকে হত্যা করে বসতঘরে পুঁতে রেখেছেন বাবা। পুলিশ সেই লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভালুকা উপজেলার রাজৈ ইউনিয়নের উরাহাটি পশ্চিমপাড়া সুলতান মিয়ার বাড়িতে।

ভালুকা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাজহারুল হক জানান, উপজেলার রাজৈ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাদশার সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ সুলতান মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে বসতঘরের মাটির নিচে পুঁতে রাখা বস্তাভর্তি জসিম উদ্দিন নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় কাউকে আটক করা হয়নি। লাশের গায়ে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি, কিন্তু গলায় প্লাস্টিকের দড়ি পেঁচানো ছিলো। এ ব্যাপারে মামলা প্রস্তুতি চলছে, তবে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

এলাকাবাসী জানায়, নিহত জসিম উদ্দিন নেশার টাকার জন্য প্রায়ই বাবা-মাসহ পরিবারের লোকদের নির্যাতন করতেন। নেশার টাকার জন্য মা সুফিয়া খাতুনকে মারধর করেন। গত বুধবার বিকেলে গ্রামের লোকজন বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাদশাকে জানালে তিনি পুলিশকে জানান। রাতেই পুলিশ ওই বাড়িতে যায় কিন্তু বাড়ির কোনো লোকজন না থাকায় ঘরের তালা ভেঙে কোনো আলামত না পেয়ে চলে আসে। বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ আবারো ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘরের ভেতর টেবিলের নিচের মাটি লোপাপোছা অবস্থায় দেখতে পেয়ে সন্দেহ হয়। পরে মাটি খুঁড়ে একটি বস্তা বের করে। বস্তা থেকে গলায় প্লাস্টিকের দড়ি পেঁচানো অবস্থায় জসিমের লাশ বের করা হয়। এরপর তা ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।