ঢাকা, শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮, ৭ বৈশাখ ১৪২৫
BYবাসস, ঢাকা
২৩ মার্চ ২০১৮, ০০:১০

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাঁর দৈনন্দিন রুটিনের বাইরে হাজার হাজার মানুষের সঙ্গে এক আনন্দঘন ও অনুপ্রেরণাদায়ক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেছেন। এই অনুষ্ঠানে দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে জমকালো লেজার শোতে বিগত বছরগুলোতে দেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রা এবং একটি দারিদ্র্য ও ক্ষুধামুক্ত জাতি গঠনে দেশের সংগ্রামের ওপর আলোকপাত করা হয়।

স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের ঐতিহাসিক সাফল্য উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে এ বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। শেখ হাসিনা হাজার হাজার মানুষের মাঝে উৎফুল্ল দর্শক হয়ে কয়েক ঘণ্টা এ আনন্দঘন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। দর্শনীয় আতশবাজি ও লেজার শোয়ের মাধ্যমে এ অনুষ্ঠানকে বর্ণিল শোভাময় করে তোলা হয়। অনুষ্ঠানে লেজার রশ্মির মোহনীয় বর্ণচ্ছটা নগরবাসীর জন্যও ছিল চোখে দেখার মতো এক স্মরণীয় ঘটনা। দলে দলে গায়ক, বাদক, নৃত্যশিল্পী ও অন্য পারফরমাররা মনোমুগ্ধকর শৈল্পিক পরিবেশনা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও হাজার হাজার দর্শককে মন্ত্রমুগ্ধ করে রাখেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আরও যাঁরা অনুষ্ঠান উপভোগ করেন, তাঁদের মধ্যে ছিলেন তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানা, রেহানার ছেলে রেদোয়ান মুজিব সিদ্দিক ববি ও তাঁর দুই নাতি। সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। মন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা, সংসদ সদস্য, রাজনীতিবিদ, বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, লেখক, শিল্পী, সাহিত্যিকসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এ আনন্দময় অনুষ্ঠানে যোগ দেন। বরেণ্য কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লা, মমতাজ এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন অনুষ্ঠানে দেশাত্মবোধক, লোক ও পল্লিগীতি এবং নৃত্যনাট্য পরিবেশন করে। দর্শনীয় আতশবাজি ও লেজার রশ্মি কিছু মুহূর্তের জন্য দর্শকদের আনন্দ ও উত্তেজনার ভেতর মোহাচ্ছন্ন করে রাখে।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন উপলক্ষে দেওয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিভিন্ন ভাষণের উল্লেখযোগ্য অংশ বাজানো হয়।