ঢাকা, রবিবার, ১৬ জুন ২০১৯, ২ আষাঢ় ১৪২৭
BYপ্রতিনিধি, জগন্নাথপুর, সুনামগঞ্জ
২১ মার্চ ২০১৯, ২৩:৫৪

বাউল গানের আসর থেকে বাড়ি ফেরার পথে এক কিশোরী বাউলশিল্পীকে (১৬) অপহরণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার একটি গ্রামে বৃহস্পতিবার ভোরে এ ঘটনা ঘটেছে। ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে জগন্নাথপুর থানায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে মোট পাঁচ যুবকের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। কিশোরীটিকে উদ্ধারে অভিযানে নেমেছে পুলিশ।কিশোরীটির বাবার দায়ের করা লিখিত অভিযোগ থেকে জানা গেছে, গতকাল বুধবার রাতে জগন্নাথপুর উপজেলার একটি গ্রামে অনুষ্ঠিত বাউলগানের আসরে বাবাকে সঙ্গে নিয়ে গান গাইতে যায় ওই কিশোরী। অনুষ্ঠান শেষে ফেরার পথে তিনটি মোটরসাইকেলে করে সাবরু মিয়া, তাঁর সহযোগী মনির মিয়া ও সাইদুল মিয়াসহ পাঁচ যুবক কিশোরীটির বাবাকে মারধর করে মেয়েটিকে মোটরসাইকেল করে তুলে নিয়ে যায়।

মেয়েটির বাবা প্রথম আলোকে বলেন, তাঁর মেয়ে বাউলশিল্পী। সে এলাকার বিভিন্ন বাউল গানের আসরে গান পরিবেশন করে। সেই সুবাদে সাবরু মিয়ার সঙ্গে তাঁদের পরিচয় হয়েছিল। বেশ কিছুদিন ধরে সাবরু মিয়া তাঁর মেয়েকে মুঠোফোনে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। এতে রাজি না হওয়ায় সাবরু মিয়া তাঁর মেয়েকে অপহরণের হুমকি দেয়। বিষয়টি বাউল গীতিকার সমিতির নেতাদের জানিয়ে বিচারও চেয়েছিলেন তিনি।

মেয়েটির বাবা জানান, বৃহস্পতিবার ভোরে বাউল গানের আসর থেকে বাড়ি ফেরার পথে সাবরু মিয়ার নেতৃত্বে পাঁচ যুবক অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তাঁর মেয়েকে মোটরসাইকেল করে তুলে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার দুপুরে মেয়েকে উদ্ধারে পুলিশের সাহায্য চেয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন তিনি।

জগন্নাথপুর থানার উপপরিদর্শক আতিকুর রহমান বলেন, ‘কিশোরীটির বাবার লিখিত অভিযোগ পেয়ে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উদ্ধার অভিযানে নেমেছি।’ জগন্নাথপুর বাউলশিল্পী সমিতির সভাপতি গীতিকার আব্দুল পরান প্রথম আলোকে বলেন, ‘কিশোরী বাউলশিল্পীকে অপহরণের ঘটনাটি দুঃখজনক। আমরা এ বিষয়ে তদন্ত করে পদক্ষেপ নিতে পুলিশকে অনুরোধ করছি।’

জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) নব গোপাল দাস প্রথম আলোকে বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়ে পুলিশ মেয়েটিকে উদ্ধারে অভিযানে নেমেছে। কিশোরীটিকে দ্রুত উদ্ধার করে আইনানুগ পদক্ষেপ নেওয়া সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।