ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
BYবিনোদন প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস

চলচ্চিত্রের নায়িকা হিসেবে অভিষেক হচ্ছে একাধিক জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত শিশুশিল্পী প্রার্থনা ফারদীন দীঘির। ইতোমধ্যে তিনি ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়াভাই’ নামে একটি সিনেমার শুটিং শুরুও করেছেন। ‘ধামাকা’ নামে আরও একটি সিনেমা রয়েছে তার হাতে। এছাড়া দীঘিকে প্রধান নায়িকা করে খ্যাতিমান পরিচালক ও চিত্রনাট্যকার দেলোয়ার জাহান ঝন্টুও একটি সিনেমা নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন। নাম ‘তুমি আছো তুমি নেই’।

এই ছবিতে দীঘির নায়ক হিসেবে প্রথমে বাপ্পী চৌধুরীর নাম ঘোষণা করা হয়েছিল। তিনি চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন এবং দীঘির সঙ্গে কিছু ফটোশ্যুটও করেছিলেন। কিন্তু সম্প্রতি দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর ‘তুমি আছো তুমি নেই’ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন বাপ্পী। তার জায়গায় দীঘির বিপরীতে সাইমন সাদিককে চূড়ান্ত করা হয়েছে। আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে দিঘী ও সাইমনকে নিয়েই শুরু হবে ‘তুমি আছো, তুমি নেই’ ছবিটির শুটিং।

গত ১৭ অক্টোবর এই ছবির ঘোষণা দেন পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু। সেদিনই নায়ক হিসেবে বাপ্পী চৌধুরীকে চূড়ান্ত করা হয়। কিন্তু কয়েক না যেতেই এত ভালো একটা প্রজেক্ট থেকে কেন নিজেকে সরিয়ে নিলেন বাপ্পী? খবর বলছে, মাথায় উইগ (নকল চুল) পরতে রাজি না হওয়ায় বাপ্পীর প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন দেলোয়ার জাহান ঝন্টু। সেটা জেনে বাপ্পীই এই ছবি থেকে সরে দাঁড়ান। চুক্তির টাকাও ফেরত দেন।

এ প্রসঙ্গে পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু বলেন, ‘আমার সিনেমায় নায়কের বড় চুল লাগবে। বাপ্পীর সঙ্গে যখন চুক্তি করেছিলাম, তখন ভেবেছিলাম তাকে উইগ পরিয়ে শুটিং করাব। কিন্তু বাপ্পী উইগ পরতে রাজি হয়নি। এখন তার চুল সেই পর্যায়ে নেই। চুল বড় করতে তাকে কমপক্ষে দুই মাস সময় দিতে হবে। কিন্তু আমার হাতে অতো সময় নেই। বিষয়টি জানার পর বাপ্পী নিজেই সরে দাঁড়িয়েছে। তার জায়গায় সাইমন সাদিককে চূড়ান্ত করেছি।’

ঢাকাটাইমস/২৬অক্টোবর/এএইচ