ঢাকা, শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮, ৭ বৈশাখ ১৪২৫

কাজ না করেই জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়ে বিব্রত হাবিব

https://www.jagonews24.com/entertainment/news/421983
BYবিনোদন প্রতিবেদক প্রকাশিত: ০২:১৩ পিএম, ১৭ এপ্রিল ২০১৮

এবছর ঘোষিত জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৬-এর শ্রেষ্ঠ নৃত্য পরিচালকের পুরস্কার নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই আলোচনা হচ্ছিলো। ‘নিয়তি’ ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ নৃত্য পরিচালক হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছেন নৃত্য পরিচালক হাবিব। হাবিব দাবি করেছেন এই ছবিতে নৃত্য পরিচালক হিসেবে কাজই করেননি তিনি। তাহলে এই ছবির জন্য কীভাবে পুরস্কার পেলেন?

হাবিব তার পুরস্কার প্রাপ্তিতে খুশি নন। পুরস্কার প্রাপ্তি নিয়ে বললেন, ‘আমি যে ছবিতে কাজ করিনি সেই ছবির জন্য আমি কেমন করে পুরস্কার পাই? বিষয়টি নিয়ে আমি অনেক বিব্রত। এটা সত্যি সবাই চায় কাজের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি আসুক। আমিও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাবার জন্য বেশ কয়েক বছর ধরেই অপেক্ষা করছিলাম। সবাই আমার কাজের জন্য প্রশংসা করতো, কিন্তু কেন পুরস্কার পাচ্ছিলাম না তা এখন বুঝতে পারছি। এমন করে যদি অনিয়ম হয় তা হলে আমার মতো যারা কাজ করছেন তারা কিভাবে পুরস্কার পাবে?’

পুরস্কার গ্রহণ করবেন কি করবেন না জানতে চাইলে উত্তরে হাবিব বলেন, ‘অবশ্যই গ্রহণ করবো, তবে তা ‘নিয়তি’ ছবির জন্য নয়। আরেকটি ছবিতে নৃত্য পরিচালক হিসেবে কাজ করেছিলাম, সেই ছবিটি পুরস্কার পাওয়ার তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে আছে। ছবির নাম ‘অনেক দামে কেনা’, আমি চাই সেই ছবির জন্য আমাকে পুরস্কার দেওয়া হোক। তাহলে আমি আনন্দের সাথে পুরস্করটি গ্রহণ করতে পারবো। কারণ এই ছবিতে আমি শতভাগ কাজ করেছি। ‘নিয়তি’ ছবিতে আমি কাজ করিনি। এর জন্য পুরস্কার পাওয়া আমার কাছে প্রতারণার মতো। আমি এটা চাই না।’

হাবিবের এই পুরস্কার প্রাপ্তি প্রসঙ্গে চলচ্চিত্র পরিবারের আহ্বায়ক চিত্রনায়ক ফারুক গতকাল এফডিসিতে আলাপকালে বলেন, ‘এই পুরস্কারটি প্রমাণ দেয় কতো গোজামিল দিয়ে চলছে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিতরণ। যে এই পুরস্কারটি পেয়েছে সে মানুষ ভালো বলেই বিব্রতবোধ করছে। মন্দ লোক হলে এটা নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতো। হাবিবের সততার জন্য আমি তাকে ধন্যবাদ জানাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার নিয়ে অনেক বিতর্ক বিভিন্ন সময় হয়েছে। তবে কাজ না করে পুরস্কার পাওয়াটা জুরি বোর্ডের ভিষণ দুর্বলতা প্রকাশ করে দিয়েছে। এ নিয়ে সমাধান পুরস্কার প্রদান কমিটি বা হাবিবই করতে পারে। তবে এটুকু বলতে চাই, এভাবে চলতে থাকলে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের মর্যাদার প্রতি আস্থা হারাবেন চলচ্চিত্রের মানুষেরা।’

বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া ও কলকাতার এসকে মুভিজের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘নিয়তি’ ছবিটি পরিচালনা করেছেন জাকির হোসেন রাজু। ২০১৬ সালের ছবির জন্য ঘোষিত পুরস্কারের মধ্যে জাজ মাল্টিমিডিয়া দুটি ছবিতে মোট ছয় ক্যাটাগরিতে পুরস্কৃত হয়। ‘নিয়তি’ ছবির দুটি ক্যাটাগরি হলো শ্রেষ্ঠ নৃত্য পরিচালক ও শ্রেষ্ঠ পোশাক ও সাজ-সজ্জা (যৌথভাবে)। আর ‘মেয়েটি এখন কোথায় যাবে’ ছবির চারটি ক্যাটাগরি হলো: শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্র অভিনেতা (যৌথভাবে), শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক, শ্রেষ্ঠ গীতিকার ও শ্রেষ্ঠ সুরকার।

‘নিয়তি’ ছবির জন্য হাবিবকে পুরস্কৃত করা হলেও এতে মূলত কাজ করেছেন কলকাতার কোরিওগ্রাফার হিসেবে জয়েশ প্রধান।

এমএবি/এলএ/পিআর