ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫
BYঅনলাইন ডেস্ক
১৬ অক্টোবর ২০১৮, ১৯:১৭

বন্ধুর হাতে খুন হলেন ভারতের মডেল মানসী দীক্ষিত। ছবি : ইনস্টাগ্রাম বন্ধুর হাতে খুন হলেন ভারতের এক তরুণী মডেল। পুলিশ বলছে, মানসী দীক্ষিত নামের ওই মডেলকে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নৃশংসভাবে খুন করেন তাঁরই বন্ধু মুজাম্মেল সৈয়দ। খবর অনুযায়ী, এই যুগলের মধ্যে ঝগড়া চরমে পৌঁছায়, শেষে খুন করা হয় মেয়েটিকে।

সংবাদমাধ্যম মুম্বাই মিরর জানিয়েছে, গতকাল সোমবার মুম্বাইয়ের পূর্ব মালাদের মাইন্ডস্পেসের রাস্তার পাশের জঙ্গলে ২০ বছর বয়সী ওই মডেলের লাশ উদ্ধার করা হয়। একটি ভ্রমণ-ব্যাগের ভেতর মেয়েটির মৃতদেহ ছিল। পুলিশ মুঠোফোনের কল অনুসরণ করে খুনিকে গ্রেপ্তার করেছে।

পুলিশ বলছে, মডেল মানসীর খুনি মুজাম্মেল সৈয়দ (১৯)। তিনি পূর্ব আন্ধেরির মিল্লাত নগরে বাস করেন। কলেজে দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মুজাম্মেল। পুলিশকে মুজাম্মেল জানিয়েছেন, মানসী দীক্ষিত তাঁর বাসায় ছিলেন। তাঁদের মধ্যে ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে মুজাম্মেল মেয়েটিকে আঘাত করেন এবং অসাবধানতাবশত খুন করে ফেলেন।

মডেল মানসী দীক্ষিত। ছবি : ইনস্টাগ্রাম

পুলিশ জানিয়েছে, তাদের কাছে খবর আসে, মালাদের রাস্তার পাশে পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি স্যুটকেস পড়ে আছে। পরে তারা নির্দিষ্ট স্থানে পৌঁছান এবং ব্যাগ খোলেন। ব্যাগের ভেতরে তারা মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত এক নারীর মৃতদেহ দেখতে পান।

পুলিশ জানায়, দ্রুতই তারা তদন্ত শুরু করেন। সিসিটিভি ফুটেজের মাধ্যমে তারা একটি প্রাইভেট কার শনাক্ত করেন, যেটি থেকে নেমে ব্যাগটি রাস্তার পাশে ফেলা হয়েছিল এবং গাড়িটির মালিকের অনুসন্ধান করেন তারা। পরে ওই মৃত মেয়েটির পরিচয় জানা যায়।

একজন পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘মৃত ওই মেয়েটির নাম মানসী দীক্ষিত, একজন মডেল। আমরা তাঁর বন্ধু সৈয়দকে গ্রেপ্তার করেছি, সোমবার সে তাঁর সঙ্গে ছিল। তাঁদের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের পর তিনি মেয়েটিকে খুন করেন। সৈয়দ দীক্ষিতকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করেন। মাথার গুরুতর আঘাতে মেয়েটির মৃত্যু হয়।’

মডেল মানসী দীক্ষিত। ছবি : ইনস্টাগ্রাম

পুলিশের উপকমিশনার সংগ্রাম সিং নিশান্দর বলেন, ‘সৈয়দ মেয়েটির মৃতদেহ স্যুটকেসে ভরে মালাদের রাস্তার ওপর ফেলে দেয়। খুনের অভিযোগে আমরা তাঁকে গ্রেপ্তার করেছি এবং তাদের বিবাদের প্রকৃত কারণ অনুসন্ধান করছি।’ সূত্র : স্পটবয় ডটকম