ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৭
BYঅনলাইন ডেস্ক
১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২৩:৪৩

ইশারাকন্যা খ্যাত মালয়ালাম অভিনেত্রী প্রিয়া প্রকাশ। ছবি : সংগৃহীত মাত্র একটি গানের টিজার, তাতেই রাতারাতি তারকা বনে যান প্রিয়া প্রকাশ ভ্যারিয়ার। আর এ জন্য কম দুর্ভোগ পোহাতে হয়নি এই তরুণীকে।

গত বছর মালয়ালাম চলচ্চিত্র ‘ওরু আদার লাভ’-এর ‘মানিক্য মালারায়া পুভি’ গানের স্বল্পদৈর্ঘ্যের টিজারে চোখ মেরে বিখ্যাত হয়েছিলেন প্রিয়া। সেই দৃশ্যটি ছড়িয়ে পড়েছিল পুরো ভারতে। চোখের মায়াজালে ঝড় তুলেছিলেন বহু পুরুষের হৃদয়ে। বিনোদনপাড়া থেকে রাজনীতিপাড়া, তাঁকে অনুকরণ করে কে চোখ মারেননি। স্বয়ং কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীও চোখ মেরেছিলেন! সেই থেকে ইশারাকন্যা হিসেবে খ্যাতি প্রিয়ার।

হঠাৎ তারকাখ্যাতি পাওয়ায় আর এর সঙ্গে পরিচয় না থাকায় ঠিকঠাক বুঝে উঠতে পারছিলেন না প্রিয়া ও তাঁর মা-বাবা। ঘর থেকে বের হলেই গণমাধ্যমকর্মীদের ভিড়, এখানে-ওখানে সাক্ষাৎকারের জন্য ডাক—এসব সামলাতে না পেরে কার্যত গৃহবন্দি ছিলেন তিনি। সম্প্রতি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমন অভিজ্ঞতার কথাই জানালেন ইশারাকন্যা।

রাতারাতি তারকা বনে যাওয়ার পর মা-বাবার কী প্রতিক্রিয়া ছিল? প্রিয়া বলেন, ‘আমরা তখন একসঙ্গে তা সামলানোর চেষ্টা করছিলাম। কারণ, শুধু আমার কাছেই নয়, পরিবারের কাছেও সবকিছু নতুন ছিল। এটা সত্য যে, তখন আমাকে ফোন বা কিছুই দেওয়া হয়নি। বেশ কয়েক দিন আমি গৃহবন্দি ছিলাম। বাইরে বের হওয়ার অনুমতি ছিল না, কারণ আমার মা-বাবা বেশ উদ্বিগ্ন ছিল। আগাম জানানো ছাড়াই আমার ঘরের দরজায় গণমাধ্যমকর্মীরা চলে আসতেন।’

“কলেজ থেকে ফিরে ইউনিফর্ম পরা অবস্থায়ই আমাকে সাক্ষাৎকার দিতে হতো। আমি দিয়েছিও! মানুষ আমার ঘরের দরজায় এসে জিজ্ঞেস করত, ‘এটা কি প্রিয়া ভ্যারিয়ারের বাড়ি?’ আমরা কি তাকে একটিবার দেখতে পারি? আমরা কি তাঁর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারি?’ বাবা অনেক সময় বানিয়ে বলত, ‘সে ঘরে নেই’, ‘সে এখন হোস্টেলে’ ইত্যাদি,” যোগ করেন এই অভিনেত্রী।

এই যে প্রাইভেসি (গোপনীয়তা) রক্ষা করা যাচ্ছিল না, সেসব কীভাবে সামলেছেন? বিপরীত উত্তর দিয়ে প্রিয়া বলেন, ‘আমি এটাকে প্রাইভেসি লস বলতে চাই না। আসলে, আমার ঘরে কার্যত কারফিউ ছিল—এর আগে বাইরে বেরোতে পারব না, এমন। কিন্তু আমি এসব ত্যাগ করতে চাইনি। আমি সত্যিই বন্ধুদের সঙ্গে বাইরে বের হওয়াটা উপভোগ করতাম এবং সব স্বাভাবিক কাজকর্মই করেছি।’

তবে প্রিয়া বলেছেন, ইশারাকন্যা অভিধা তাঁকে জনপ্রিয় করেছে বটে, ভবিষ্যতে অভিনয় দিয়েই সবার মনে স্থান করে নিতে চান তিনি।

এবারের ভালোবাসা দিবসে (১৪ ফেব্রুয়ারি) মুক্তি পাবে প্রিয়া প্রকাশের মালয়ালাম ছবি ‘ওরু আদার লাভ’।

তামিল, তেলেগু ও কন্নড় চলচ্চিত্রশিল্পের সঙ্গে জড়িতরা চাইছেন প্রিয়ার জনপ্রিয়তাকে পুঁজি করে ব্যবসা বাড়াতে এবং সে লক্ষ্যে তাঁরা প্রিয়ার সিনেমা ওই তিন ভাষায় মুক্তি দিতে চলেছেন। ওমর লুলু পরিচালিত এই ছবি স্কুলপড়ুয়া দুই তরুণ-তরুণীর প্রেমের গল্প ঘিরে।

‘শ্রীদেবী বাংলো’ দিয়ে বলিউডে অভিষেক হতে চলেছে প্রিয়ার। কিছুদিন আগেই বেরিয়েছে এ ছবির ট্রেইলার। অবশ্য ছবির নাম ও গল্পের কারণে সমালোচনার মুখে পড়েছেন তিনি। প্রশান্ত মামবুলি পরিচালিত এ ছবিতে প্রিয়া জুটি বেঁধেছেন প্রিয়াংশু চক্রবর্তীর সঙ্গে। চলতি বছরেই মুক্তি পাবে ছবিটি।

২০১৮ সালে প্রিয়াকেই গুগলে সবচেয়ে বেশি খুঁজেছেন ভারতের মানুষ। আর বাংলাদেশে গুগল সার্চের তালিকায় তাঁর অবস্থান ছিল দ্বিতীয়। সূত্র : ডিএনএ