ঢাকা, রবিবার, ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
BYবিনোদন ডেস্ক
১২ অক্টোবর ২০১৮, ০৮:৩৯

একের পর এক ফাঁস হতে শুরু করেছে পুরোনো ঘটনা। যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে বলিউডের খ্যাতিমান সব পুরুষের বিরুদ্ধে। বলিউডে যেন পুরোদমে শুরু হয়ে গেছে #মি টু আন্দোলন। জেনে নিন অভিযুক্ত ১০ জনের কাহিনি।

১. নানা পাটেকর২০০৮ সালে ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির শুটিং সেটে অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্তের গায়ে নোংরাভাবে হাত রেখেছিলেন শক্তিমান অভিনেতা নানা পাটেকর। সম্প্রতি নতুন করে এ অভিযোগ সামনে নিয়ে আসেন তনুশ্রী। তারপরই উত্তাল হতে শুরু করে বলিউড। এর কিছুদিন পর নানা পাটেকর অপবাদ প্রত্যাহার তুলে নিয়ে ক্ষমা চাওয়ার জন্য আইনি নোটিশ পাঠান তনুশ্রী দত্তকে। পুরোনো সেই ঘটনার অভিযোগে গতকাল বৃহস্পতিবার নানা পাটেকরের নামে মামলা করেছে মুম্বাই পুলিশ।২. অলোক নাথটিভি অনুষ্ঠানের চিত্রনাট্যকার, পরিচালক ও প্রযোজক বিনতা নন্দাকে ১৯ বছর আগে ধর্ষণ করেছিলেন অভিনেতা অলোক নাথ। অভিযোগ করেছেন বিনতা নন্দা। ১৯৯৪ সালে জি টিভির অন্যতম জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘তারা’র প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন অলোক নাথ ও নবনীত নিশান। শুটিংয়ের সেটে অলোক নাথ নানাভাবে নবনীত নিশানকে হেনস্তা করতেন। ‘তারা’ সিরিয়ালের চিত্রনাট্যকার ও প্রযোজক ছিলেন বিনতা নন্দা। সে সময় একটি নৈশভোজের অনুষ্ঠান থেকে ফেরার পথে গভীর রাতে চেতনানাশক খাইয়ে বিনতাকে গাড়ির ভেতরে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে অলোকের বিরুদ্ধে। শুধু তা-ই নয়, পরে বিভিন্ন সময় তাঁর ওপর চড়াও হয়েছেন অভিনেতা অলোক নাথ।

গত বুধবার আবার অভিনেত্রী সন্ধ্যা মৃদুল এবং কারিগরিকর্মী অলোক নাথের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছেন। জানিয়েছেন, ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে মৃদুলের সঙ্গে সঙ্গে নোংরা আচরণ করেছিলেন অলোক। এমনকি জবরদস্তির চেষ্টা করেছিলেন। এক রাতে সব অভিনয়শিল্পীরা মিলে নৈশভোজে যান। অলোক সেখানে প্রচুর মদ্যপান করেন এবং মৃদুলকে তাঁর পাশে বসতে বলেন, এরপর তাঁকে আপত্তিকর সব কথা বলতে থাকেন। রাতে মদ্যপ অবস্থায় হোটেলে তাঁর কক্ষের দরজায় জোরে জোরে আঘাত করেন আর চিৎকার করে বলেন, ‘আমি তোমাকে চাই। তুমি আমার।’

এ ছাড়া ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ ছবির এক নারী কর্মীর সঙ্গে অশালীন আচরণ করেছিলেন অলোক। ওই তরুণী অলোক নাথের কক্ষে পোশাক দিতে গিয়েছিলেন। অলোক তাঁর সামনেই পোশাক বদল করতে শুরু করেন। মেয়েটি সেখান থেকে সরে আসতে গেলে অলোক তাঁর হাত টেনে ধরেন।

৩. বিকাশ বেহেল‘চিল্লার পার্টি’, ‘কুইন’, ‘শান্দার’ ও ‘সুপার থার্টি’ ছবির পরিচালক বিকাশ বেহেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ গুরুতর। তাঁর কুকর্ম প্রথম ফাঁস করেছেন বলিউড তারকা কঙ্গনা রনৌত। পরে শুরু হয় একের পর এক অভিযোগ। হাফপোস্ট ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কঙ্গনা রনৌত বলেছিলেন, বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে দেখা হতো তাঁদের। আলিঙ্গন করে একে অন্যকে অভিবাদন জানাতেন তারা। এই সুযোগে বিকাশ তাঁর মুখ গুঁজে দিত কঙ্গনার কাঁধে। বেশ জোরে চেপে ধরে চুলের ঘ্রাণ নিতেন আর বলতেন, ‘তোমার শরীরের ঘ্রাণ আমার ভালো লাগে কঙ্গনা।’

‘কুইন’ ছবির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ফ্যান্টম ফিল্মসের একজন সাবেক কর্মী বিকাশের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ করেছেন। এ ছাড়া ‘কুইন’ ছবির অন্যতম অভিনয়শিল্পী নয়নী দীক্ষিতের সঙ্গেও নোংরা আচরণ করেছিলেন বিকাশ। ‘সুযোগ’ না পেয়ে তাঁর ওপর নানা অত্যাচার করেছেন তিনি।

৪. রজত কাপুরঅভিনেতা ও চলচ্চিত্রকার রজত কাপুরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ করেছেন অনেক নারী। এক নারী সাংবাদিককে কী যেন জিজ্ঞেস করে রীতিমতো অস্বস্তিকর অবস্থায় ফেলে দিয়েছিলেন রজত। বছর ১০ আগে অভিনেতা সৌরভ শুক্লার ফোন থেকে আরেক নারীকে বারবার ফোন করছিলেন রজত। তাঁকে জিজ্ঞেস করেছিলেন, ‘কারও ঘর ফাঁকা আছে?’ ঘটনা প্রকাশের পর রজত কাপুর ক্ষমা চেয়েছেন।৫. কৈলাস খেরভারতের জনপ্রিয় গায়ক কৈলাস খেরের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছেন নারী আলোকচিত্রী ও সাংবাদিক নাতাশা হেমরাজানি। একবার সাক্ষাৎকার নেওয়ার সময় কৈলাস নাকি স্কার্টের নিচ দিয়ে তাঁর ঊরুর ওপর হাত রেখেছিলেন। যদিও ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেননি কৈলাস। তবে কোনো আচরণে কেউ আঘাত পেয়ে থাকলে দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি।

ঊরুতে হাত দেওয়ার আরও অভিযোগ আছে কৈলাস খেরের বিরুদ্ধে। টুইট করে গায়িকা সোনা মহাপাত্র লিখেছেন সে কথা। তিনি লিখেছেন, ‘একটি অনুষ্ঠান নিয়ে কথা বলতে একবার এক ক্যাফেতে গিয়েছিলাম। কৈলাস সেদিন আমার ঊরুতে হাত রেখে বলতে থাকেন, তুমি কত সুন্দর। পরে ঢাকায় এক কনসার্টে গিয়েও আমাকে তিনি বারবার ফোন করে হোটেলে তাঁর কক্ষে যেতে বলছিলেন।’

৬. বৈরামুথুযৌন হয়রানির অভিযোগ থেকে রেহায় পাননি গীতিকবি বৈরামুথু। অনেক নারীই তাঁর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ করেছেন। সবগুলো অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি। শিল্পী চিন্ময়ী অন্তত দুটি অনুষ্ঠানের কথা স্মরণ করে বলেছেন, বৈরামুথু ভীষণ অস্বস্তিকর অবস্থায় ফেলেছিল তাঁকে। চিস্ময়ীকে ইঙ্গিত করে বৈরামুথু বলেছেন, ‘অসহযোগিতা করছে ভীষণ, ওর ক্যারিয়ার নেই।’৭. এম মুকেশএক নারী কাস্টিং ডিরেক্টরের সঙ্গে নোংরা ব্যবহার করেছিলেন মুকেশ। চেন্নাইতে একটি কুইজ অনুষ্ঠানের সময় ঘটেছিল ঘটনাটি। মুকেশ তাঁকে বেশ কয়েকবার তাঁর কক্ষে ডেকেছিলেন। এমনকি বেশ কয়েকবার নিজের কক্ষ বদলে তাঁর কক্ষের পাশে কক্ষ নেন। অবশ্য মুকেশ বলেছেন, ওই কাস্টিং ডিরেক্টরের সঙ্গে তিনি কাজ করেছেন বলে মনে পড়ে না।৮. অভিজিৎ ভট্টাচার্যকলকাতার একটি পাবে এক বিমানবালার সঙ্গে নোংরা আচরণ করেছিলেন শিল্পী অভিজিৎ। এ প্রসঙ্গে অভিজিৎ বলছেন, ‘যারা অভিযোগগুলো করছে এদের বেশির ভাগই দেখতে মোটা ও কুৎসিত এবং যে সময়ের কথা বলছে তখন আমি জন্মাইনি।৯. বরুণ গহর২০০১ সালে এক নাটকের মহড়ায় এক নারীকে বাজেভাবে স্পর্শ করেছিলেন বরুণ গহর। তবে বরুণ সেটা নাকচ করেছেন। বলেছেন, আমি জীবনে কাউকে খারাপভাবে স্পর্শ করিনি। এমনকি পরিচালক অনুরাগ কাশ্যাপ বলেছেন, বরুণের ব্যাপারে কোনো খারাপ কথা আমি বিশ্বাস করব না।১০. রঘু দীক্ষিতস্টুডিওর ভেতরে একবার একটি গানের রেকর্ডিংয়ের সময় চিন্ময়ী শ্রীপদকে চুমু খেতে চেয়েছিলেন রঘু দীক্ষিত। চিন্ময়ী টুইটে লিখেছিলেন, স্টুডিওতে কথাবার্তা চলছিল, তখন রঘু তাঁকে কোলে বসতে বলেছিলেন। রঘু অবশ্য এ ঘটনা প্রকাশের পর ক্ষমা চেয়েছেন। তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস