ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৭
BYবিনোদন ডেস্ক
১২ জুন ২০১৯, ২০:৪১

অমিতাভ বচ্চনের তারকাখ্যাতির আড়ালে লুকানো একটা বড় মন আছেন। সেই মন বরাবরই আর্দ্র হয়েছে ভারতের কৃষকদের দুর্বিষহ কষ্টে। ১৯৯৫ সালের পর থেকে অন্তত তিন লাখ কৃষক শুধু ঋণের দায়ে জর্জরিত হয়ে আত্মহত্যা করেছেন। আর তাই একাধিকবার নিজের কোটি কোটি টাকা কৃষকদের ঋণ মওকুফ করতে খরচ করেছেন অমিতাভ বচ্চন। আর এবার বিহারের ২ হাজার ১০০ কৃষকের ঋণ মওকুফ করলেন এই বলিউড সুপারস্টার।

৭৬ বছর বয়সী এই বলিউড তারকা নিজেই ব্লগে এই খবর জানিয়েছেন। বলেছেন, প্রতিবার যখন তিনি কৃষকদের ঋণ মওকুফ করেন, তাঁর মনে হয়, জীবনে তিনি কিছু একটা করেছেন। ঋণ মওকুফের জন্য বিহারের কিছু কৃষককে তিনি নিজের বাড়িতে ডাকেন। তাঁর দুই সন্তান অভিষেক বচ্চন এবং শ্বেতা বচ্চনের হাত থেকে তিনি কৃষকদের হাতে ঋণ মওকুফের অর্থ তুলে দেন। ৪ বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও ১৫ টি ফিল্মফেয়ার পাওয়া এই অভিনেতা নিজের ব্লগে লিখেছেন, ‘নিজের করা একটা প্রতিজ্ঞা আজ বাস্তবে রূপ দিলাম। বিহারের যে কৃষকেরা ঋণের দায়ে জর্জরিত ছিলেন, তাঁদের ভেতর সব থেকে বেশি ঋণগ্রস্ত ২১০০ কৃষকের ঋণ মওকুফ করলাম। কিছু কৃষককে আমি “জনকে”ডাকি। ব্যক্তিগতভাবে শ্বেতা আর অভিষেকের হাত দিয়ে এই অর্থ প্রদান করি।’

প্রসঙ্গত, মুম্বাইয়ের জুহুতে অমিতাভ বচ্চনের কেনা প্রথম বাড়িটির নাম ‘প্রতীক্ষা’। ২০০৪ সালে ‘জনক’ নামে আরেকটি বাড়ি কেনেন অমিতাভ। অবশ্য এটি অফিস হিসেবে ব্যবহার করেন বচ্চনরা। জুহুতে ‘ভাতসা’ নামেও একটি বাড়ি আছে তাঁদের। আর ‘জলসা’ নামের বাংলোবাড়িতে থাকেন বচ্চন পরিবারের সদস্যরা। এর পেছনেও ৭৫ কোটি রুপি খরচ করে আরেকটি বাড়ি কেনেন। তা ছাড়া, প্যারিসেও তাঁর আরেকটি বাড়ি আছে।

একটি নয়, এদিন নিজেকে দেওয়া আরও একটি কথা রেখেছেন অমিতাভ। কৃষকদের ঋণ মওকুফের পর তিনি গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী বোমা হামলায় নিহত ৪৬ ভারতীয় সৈন্যের পরিবারকেও সাহায্য করেন। সেটিও ব্লগে উল্লেখ করেছেন অমিতাভ বচ্চন। এর আগে গত বছরের নভেম্বরে উত্তর প্রদেশের ১ হাজার ৩৯৮ জন কৃষকের প্রায় ছয় কোটি টাকা অর্থমূল্যের ঋণ শোধ করেন। এই উত্তর প্রদেশই অমিতাভের জন্মস্থান। তা ছাড়া, মহারাষ্ট্রের ৩৫০ জন কৃষকের ঋণও শোধ করেছেন অমিতাভ বচ্চন।