ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

‘মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষায় শারীরিক ব্যায়াম গুরুত্বপূর্ণ’

http://www.dhakatimes24.com/2018/10/10/99188/মানসিক-স্বাস্থ্য-সুরক্ষায়-শারীরিক-ব্যায়াম-গুরুত্বপূর্ণ
BYনিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস ২০১৮ উদযাপিত হয়েছে।

বুধবার বিএসএমএমইউয়ের মনোরোগবিদ্যা বিভাগের উদ্যোগে র‌্যালি, সেমিনার, নাটক প্রদর্শনী, কুইজ প্রতিযোগিতা, ক্রেস্ট প্রদানসহ নানা আয়োজনে দিবসটি পালিত হয়।

এবারে দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘পরিবর্তনশীল বিশ্বে তরুণদের মানসিক স্বাস্থ্য’। দিবসটি উপলক্ষে বিএসএমএমইউয়ের শহীদ ডা. মিলন হলে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এই উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া।

উপাচার্য বলেন, ‘বিশ্ব এখন তরুণদের। বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে তরুণদের অবদান অনস্বীকার্য। তবে পরিবর্তনশীল বিশ্বে তরুণদের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে অবশ্যই ভাবতে হবে। মানসিক স্বাস্থ্য ঠিক রাখার জন্য নিয়মিত ঘুম, ব্যায়াম, মানসিক চাপ মোকাবেলার সক্ষমতা অর্জন, আবেগ নিয়ন্ত্রণ জরুরি। এরমধ্যে শারীরিক ব্যায়ামটা খুবই প্রয়োজন।’

‘তরুণ প্রজন্মকে শারীরিক ব্যায়ামের প্রতি অধিক গুরুত্ব দিতে হবে। মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখতে খেলাধুলা, বন্ধুদের সঙ্গে একসাথে বসে গল্প করা, সঙ্গীত শোনার প্রয়োজন রয়েছে। তরুণ প্রজন্ম এখন আর তার পাশের লোকটির সাথে কথা না বলে মোবাইলেই সময় ব্যয় করে, এ অবস্থার পরিবর্তন হওয়া জরুরি।’

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার। সভাপতিত্ব করেন মনোরোগবিদ্যা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এম এম এ সালাউদ্দীন কাউসার বিপ্লব। আরও বক্তব্য দেন মনোরোগবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ডা. ঝুনু শামসুন নাহার, অধ্যাপক এম এস আই মল্লিক।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও জানানো হয়, বিশ্বব্যাপী অসুস্থতা ও ডিজএ্যাবালিটির অন্যতম প্রধান কারণ বিষণ্নতা। ১০-১৯ বছর বয়সীদের অসুস্থতার শতকরা ১৬ ভাগ মানসিক কারণজনিত। ১৫-১৯ বছর বয়সীদের মৃত্যুর তৃতীয় প্রধান কারণ আত্মহত্যা। মানসিক স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি এবং মানসিক রোগের প্রতিকার বর্তমান প্রজন্মের অঙ্গীকার হওয়া উচিত বলে মনে করেন বক্তারা।

(ঢাকাটাইমস/১০অক্টোবর/এএ/জেবি)