ঢাকা, সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২ ফাল্গুন ১৪২৬

ইউরোপিয়ান ওয়েলনেস ভিলা মেডিকার ২১তম শাখা ঢাকায়

https://www.jugantor.com/capital/265823/ইউরোপিয়ান-ওয়েলনেস-ভিলা-মেডিকার-২১তম-শাখা-ঢাকায়
BY  যুগান্তর ডেস্ক    ১১ জানুয়ারি ২০২০, ১৮:৪০ | অনলাইন সংস্করণ
দেশে সর্বপ্রথম লেটেস্ট মেডিকেল সায়েন্স নির্ভর রিজেনারেটিভ চিকিৎসা সেবা নিয়ে এসেছে ইউরোপিয়ান ওয়েলনেস ভিলা মেডিকা বাংলাদেশ প্রিমিয়ার সেন্টার।

জার্মানের বিশ্বখ্যাত ইউরোপিয়ান ওয়েলনেস ভিলা মেডিকার ২১তম শাখা এই মেডিকাল সেন্টার।

রিজেনারেটিভ বা বায়োলজিক্যাল মেডিসিন এমন একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা যা দীর্ঘমেয়াদী, বয়স জনিত যে কোন কঠিন এবং জটিল রোগ যেমন ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হার্ট, কিডনি, লিভার, উচ্চ কোলেস্টেরল, আথ্রাইটিক ব্যথা, আলজাইমার, অনিদ্রা এবং ত্বক সম্পর্কিত সকল রোগের সমাধান।

যারা এ সকল রোগের ঝুঁকিতে রয়েছেন, সবেমাত্র রোগের অগ্রগতি শুরু করেছেন বা ইতিমধ্যে এই দীর্ঘস্থায়ী এবং প্রচলিত রোগে ভুগছেন তাদের জন্য রিজেনারেটিভ মেডিসিন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াহীন নিরাময় প্রদান করে থাকে।

এই চিকিৎসা ব্যবস্থা রোগের অগ্রগতি ধীর করে, রোগের জটিলতা দূর করে এবং রোগের মূল কারণকে চিহ্নিত করে চিকিৎসা পদ্ধতি নির্ধারণ করে।

আমরা মূলত ৪ ভাবে চিকিৎসা সেবা প্রদান করে থাকি- ডায়াগনোসিস (সঠিক রোগ নির্ণয়), ডিটোক্ষিফিকেশন (দূষিত পদার্থ অপসারণ), রিপেয়ার (ক্ষয় পূরণ), রিজুভিনেশন (পুনর্বিন্যাস)। এছাড়াও রয়েছে আধুনিক পুষ্টি বিদ্যা এবং অভিজাত এয়েস্থেটিক ট্রিটমেন্টের মাধ্যমে সৌন্দর্য বৃদ্ধি ও ত্বকের অন্যান্য সমস্যা দূরীকরণ সহ বার্ধক্যজনিত ছাপ অপসারণের অভাবনীয় ব্যবস্থা।

এখন আর বিদেশ যাওয়ার প্রয়োজন নেই, বাংলাদেশেই রয়েছে বিশ্ব মানের ইউরোপিয়ান স্ট্যান্ডার্ড চিকিৎসা পদ্ধতি।

রিজেনারেটিভ মেডিসিনের উপকারিতা সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করার লক্ষে শুক্রবার ইডব্লিউ ভিলা মেডিকার পক্ষ থেকে একটি ফ্রি ক্যাম্পেইনের আয়োজন করা হয়েছিল ধানমন্ডির রবীন্দ্র সরোবরে।

যেখানে ফ্রি ব্লাড গ্লুকোজ পরীক্ষা, বি এম আই নির্ণয় এবং ব্লাড প্রেশার মাপা হয়েছে। তাছাড়াও ডি এম এফ আর মলিকুলার ল্যাব এন্ড ডায়াগনস্টিক এর পক্ষ থেকে আকর্ষণীয় স্বাস্থ্য সেবা প্যাকেজ প্রদান করা হয়েছে।

যেখানে লিপিড প্রোফাইলের ৪ টি টেস্টে ৬২% এবং ক্রিয়েটিনিন+ ইলেক্ট্রোলাইট+ লিপিড প্রোফাইল এর মোট ৬ টি টেস্টে ৫৭% ছাড় প্রদান করা হয়েছে।

আমাদের এই সচেতনতা মূলক অনুষ্ঠানের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে জানুয়ারি মাসব্যাপী। অনুষ্ঠানটির সার্বিক সহযোগিতায় ছিল কনকর্ড ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড।