ঢাকা, রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮, ৯ বৈশাখ ১৪২৫
BYফিচার ডেস্ক
১৬ এপ্রিল ২০১৮, ১৫:৫৮

বিভিন্ন কারণে স্বরভঙ্গ হয়। চিৎকার করে কথা বলা, কণ্ঠের যত্ন না নেওয়া, কিছু জন্মগত ত্রুটির কারণে স্বরভঙ্গ হতে দেখা যায়। স্বরভঙ্গে চিকিৎসায় করণীয় বিষয়ে এনটিভির নিয়মিত আয়োজন স্বাস্থ্য প্রতিদিন অনুষ্ঠানের ৩০৫৯তম পর্বে কথা বলেছেন ডা. মনজুরুল আলম।

বর্তমানে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইএনটি ও হেড-নেক সার্জারি বিভাগের ইউনিটপ্রধান ও অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত। প্রশ্ন : স্বরভঙ্গের ক্ষেত্রে আপনারা কী ধরনের চিকিৎসা করেন? উত্তর : আমরা ওষুধ দিয়ে চেষ্টা করি কোনো কিছু করা যায় কি না, এরপর আমরা ভোকাল কর্ডে বা পলিপে সার্জিক্যাল চিকিৎসাও করে থাকি। প্রশ্ন : সার্জিক্যাল চিকিৎসা কখন করেন? উত্তর : ভয়েজ থেরাপি বা মেডিকেল থেরাপিতে যদি সেরে না যায়, যদি নডিউল হয়, আমরা কিছু ব্যায়াম দিয়ে থাকি, কথা বলার প্রক্রিয়া তাকে সেখানো হয়। তাকে কিছু নিয়মকানুন মেনে চলতে হয়। এরপরও যদি ঠিক না হয়, তখন আমরা সার্জারিতে নিয়ে যাই। পলিপ্যাক্টোমি বা অ্যান্ডোস্কোপিক পলিপ্যাক্টোমি করি। আরো যদি আমাদের দরকার হয়, আমরা সম্পূর্ণ স্বরনালিকে বের করে নিয়ে আসতে পারি। এরপর অনেক সময় এর পুনর্বাসন দরকার হয়। ভয়েজ প্রসথেসিস করা হয়। এরপর সে কৃত্রিমভাবে কথা বলতে পারে। প্রশ্ন : এটি কি সাধারণ স্বরের মতোই কাজ করে? উত্তর : ইসোভেজিয়াল ভয়েজ, খাদ্যনালিকে ব্যবহার করেও অনেকে সুন্দরভাবে ভয়েজ ব্যবহার করতে পারে। ভয়েজ প্রসথেসিস দিই। আধুনিক অনেক প্রসথেসিস বের হয়ে এসেছে। সাধারণ স্বরনালির মতোই এগুলো ব্যবহার করে তারা কথা বলতে পারে। এখন প্রতিটি জায়গায় এটি পাওয়া যাচ্ছে।