ঢাকা, বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৫ আশ্বিন ১৪২৪

বাড়ি ফিরছেন তোফা-তহুরা, চাকরি পাচ্ছেন বাবা

http://www.rtvonline.com/others/health/21881/%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A7%
BYআরটিভি অনলাইন রিপোর্ট|  ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ২১:৩০ | আপডেট : ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ২৩:৫৩
কোমরের নিচে জোড়া লাগা অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি তোফা-তহুরার বাবা রাজু মিয়াকে চাকরি দেয়া হবে। বললেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।  

রোববার দুপুরে হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরার সময়ে তোফা-তহুরাকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় জানাতে গিয়ে তিনি এ ঘোষণা দেন।  

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আমরা চাই তারা (তোফা-তহুরা) ভালো থাকুক। মানসম্মত ও উন্নত চিকিৎসায় তারা বড় হয়ে উঠুক। এই কৃষক পরিবার এখন কোথায় যাবে? আমি অবশ্যই পরিবারটিকে দেখব। তোফা-তহুরার বাবার চাকরির বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে।  

তিনি বলেন, চিকিৎসকরা তোফা ও তহুরাকে নতুন জীবন দিয়েছেন। বাবা-মায়ের কোলে করে বাড়ি ফিরছে তারা, বাবা-মায়ের কাছে এর চেয়ে বড় আনন্দের আর কিছু নেই। চিকিৎসকদের এই দল যেভাবে কাজ করেছেন, তিনি তা অন্যদের অনুসরণ করতে বলেন।

প্রধানমন্ত্রী ও দেশবাসীর পক্ষ থেকে এই প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত চিকিৎসক দলকে শুভেচ্ছা জানান তিনি।  

গেলো বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দহবন্দ ইউনিয়নের ঝিনিয়া গ্রামের রাজু মিয়ার স্ত্রী সাহিদা বেগম নিজ বাড়িতে শরীর জোড়া লাগানো অবস্থায় তোফা-তহুরার জন্ম দেন।

কোমরের কাছে জোড়া লাগানো শিশু দুটির সব অঙ্গ-প্রত্যঙ্গই ছিল। গত বছরের ৮ অক্টোবর ঢামেকে অপারেশনের মাধ্যমে তাদের পায়ুপথ আলাদা করা হয়।

পরে গত ৩ আগস্ট দ্বিতীয়বারের মতো অস্ত্রোপচার করে তাদের শরীর আলাদা করা হয়। ওইদিন সকাল ৮টায় শুরু হয় জটিল ও ঝুঁকিপূর্ণ এ অস্ত্রোপচার। বিকাল পাঁচটায় শিশু দুটিকে সফলভাবে আলাদা করেন চিকিৎসকরা।

তোফা-তহুরার মা সাহিদা বেগম জানান, তাদের বাড়ি ফেরার সকল প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে সরাসরি গ্রামের বাড়ি গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে যাব।

শনিবার রাতে তোফা-তহুরার চিকিৎসার তত্ত্বাধায়ক অধ্যাপক সাহনুর ইসলাম তাদের সবাইকে নতুন পোশাক উপহার দিয়েছেন বলেও জানান তিনি।  

এসজে

x