ঢাকা, শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ২ পৌষ ১৪২৪

নিউমোনিয়া শুরু হয় সর্দি কাশি ও জ্বর দিয়ে

http://www.rtvonline.com/others/health/28086/নিউমোনিয়া-শুরু-হয়-সর্দি-কাশি-ও-জ্বর-দিয়ে
BYআরটিভি অনলাইন ডেস্ক|  ০৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৫:৩৯
সুস্থ জীবনযাপনে আমদের সচেতন থাকা খুবই জরুরি। এজন্য স্বাভাবিক স্বাস্থ্য সচেতনতা ছাড়াও ডাক্তারের পরামর্শ প্রয়োজন। এজন্য আরটিভিতে সরাসরি সম্প্রচারিত স্বাস্থ্যবিষয়ক পরামর্শমূলক ‘সেভলন সুস্থ থাকুন’ অনুষ্ঠানটি পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

আজকের আলোচনার বিষয় শিশুদের নিউমোনিয়া ও শীতকালীন বিভিন্ন রোগ এবং এর প্রতিকার। এ বিষয় সম্পর্কে জানাবেন ইউনাইটেড হাসপাতালের নবজাতক ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ মশিউর রহমান।

১. শীতকালে শিশুরা সাধারণত কোন ধরনের রোগে আক্রান্ত হয়?

উত্তর: আসলে ঋতু পরিক্রমার এই সময়টিতে দিনে গরম এবং রাতে ঠাণ্ডা অনুভূত হয়। ঋতু পরিবর্তনের এ সময়টিতে  বড়রা যতটা সহ্য করতে পারে শিশুরা ততটা পারে না। কারণ তাদের শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা কম। আর এ কারণেই শীতের সময় শিশুরা বিভিন্ন শ্বাস-প্রশ্বাস জনিত রোগে বেশি আক্রান্ত হয়। তবে শীতের সময় শিশুদের যে রোগে বেশি আক্রান্ত হতে দেখা যায় তা হলো নিউমোনিয়া। সাড়া পৃথিবীতে প্রতি বছর নিউমোনিয়া রোগে আক্রান্ত হয়ে ১২ লক্ষ শিশু মারা যায়। এছাড়া এ সময় অনেক শিশুকেই নিউমোনিয়ার মতোই ব্রংকাইটিস রোগেও আক্রান্ত হতে দেখা যায়। তবে ইদানীং খুব বেশি দেখা যাচ্ছে অ্যালার্জিজনিত কারণে ঠাণ্ডা লাগে এবং এ থেকে শুরু হয় শ্বাস-প্রশ্বাস জনিত সমস্যা।       

২. কিভাবে বোঝা যাবে শিশুটি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত?

উত্তর: এ রোগটি শুরু হয় সাধারণ সর্দি, কাশি ও একটু জ্বর দিয়ে। তবে বাবা-মা যখন দেখবেন দু-তিন দিন চলে গেলো তবুও শিশুটির শ্বাস-প্রশ্বাসের গতি স্বাভাবিক হচ্ছে না, খুব দ্রুত শ্বাস নিচ্ছে ও খাওয়া কমিয়ে দিয়েছে তখনি বুঝতে হবে এটি সম্ভবত নিউমোনিয়ার লক্ষণ। তখন যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

৩. নিউমোনিয়া আক্রান্ত শিশুদের প্রাথমিক চিকিৎসা ও খাদ্যাভ্যাস কেমন হওয়া উচিৎ?

উত্তর: আসলে নিউমোনিয়া খুব বিপদজনক একটি রোগ। নিউমোনিয়া মানেই হলো ফুসফুসের প্রদাহ। আর ফুসফুসের কাজই হলো অক্সিজেন গ্রহণ এবং কার্বন-ডাই-অক্সাইড ছেড়ে দেয়া। কাজেই যখন নিউমোনিয়া হয় তখন ফুসফুসটা আর এ কাজটি করতে পারে না। তখন অক্সিজেনের অভাব হতে পারে। তাই নিউমোনিয়ার প্রাথমিক চিকিৎসা ডাক্তারকেই করতে হবে। এটি বাবা-মার পক্ষে করা সম্ভব নয়।

নিউমোনিয়া রোগে আক্রান্ত হলে অবশ্যই ঠাণ্ডা খাবার থেকে বিরত থাকতে হবে।

আর একটি বিষয় হলো নিউমোনিয়া হলে নাক বন্ধ থাকে ও গলা ব্যথা করে। তাই এ সময় একটু বেশি কুসুম গরম তরল খাবার খাওয়া ভালো এবং সে যেকোনো খাবারই খেতে পারবে। খাবারের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের বিধি নিষেধ নেই।

আরকে/এমকে 

x