ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৭

মোদী ও ইমরানকে ফোন ট্রাম্পের, উত্তেজনা হ্রাসের আহ্বান

http://bangla.bdnews24.com/world/article1655855.bdnews
BY  নিউজ ডেস্ক  বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published: 20 Aug 2019 01:08 PM BdST Updated: 20 Aug 2019 01:14 PM BdST

সোমবার টেলিফোনে ট্রাম্প ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে কথা বলেছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

এ বিষয়ে এক টুইটার পোস্টে ট্রাম্প বলেছেন, “আমার দুই ভালো বন্ধু, ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদী ও পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী খানের সঙ্গে কথা বললাম। বাণিজ্য, কৌশলগত অংশীদারিত্ব এবং সবচেয়ে গুরুত্ব দিয়ে ভারত ও পাকিস্তানকে কাশ্মীরে উত্তেজনা হ্রাসের জন্য কাজ করতে বললাম। কঠিন পরিস্থিতি, কিন্তু ভালো আলাপ হয়েছে!”  

আগে থেকেই নয়া দিল্লি ও ইসলামাবাদের মধ্যে শত্রুতার সম্পর্ক বিদ্যমান, এর মধ্যে কাশ্মীরের ভারতীয় অংশের বিশেষ মর্যাদা বিলোপ করার দিল্লির সিদ্ধান্তে দুই দেশের সম্পর্ক আরও নাজুক হয়েছে। ভারতের ওই সিদ্ধান্তে পাকিস্তান ক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করে দুই দেশের মধ্যে যান চলাচল ও দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বন্ধ করে দিয়ে ইসালামাবাদ থেকে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করেছে।  

এক বিবৃতিতে ভারত সরকার জানিয়েছে, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ট্রাম্পকে বলেছেন যে ভারতের বাণিজ্যমন্ত্রী ও মার্কিন বাণিজ্য প্রতিনিধি দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য নিয়ে ফের আলোচনায় বসবেন বলে আশা করছেন তিনি।

ট্রাম্প ও মোদীর মধ্যে বাণিজ্য নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে ওয়াশিংটন নিশ্চিত করেছে।

এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউস বলেছে, “বাণিজ্য বৃদ্ধির মাধ্যমে তারা যুক্তরাষ্ট্র-ভারতের অর্থনৈতিক মিত্রতা কীভাবে আরও জোরদার করার দিকে এগিয়ে নিতে পারেন তা নিয়ে ফের আলোচনা করেছেন দুই নেতা এবং তারা শিগগিরই আবার দেখা করার প্রত্যাশা করছেন।” 

ফোনে কথা বলার সময় ট্রাম্প ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা হ্রাসের প্রয়োজনীয়তার বিষয়টিতেও জোর দিয়েছেন বলে ওই বিবৃতিতে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।

কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিয়ে ভারতের সঙ্গে ‘উত্তেজনা ও বাদানুবাদের হ্রাসের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আলোচনার’ জন্য ট্রাম্প পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গেও কথা বলেছেন বলে বিবৃতিতে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।

“পরিস্থিতির আরও অবনতি এড়ানোর প্রয়োজনীয়তা পুনর্ব্যক্ত করে উভয়পক্ষকে সংযত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট,” বলেছে হোয়াইট হাউস।

ট্রাম্প ও খান বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক মিত্রতা জোরদার করতে একসঙ্গে কাজ করার বিষয়েও সম্মত হয়েছেন বলে বিবৃতিতে বলা হয়েছে।