ঢাকা, রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

‘আদালতের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে নির্বাচনে অংশ নিন’

http://www.ittefaq.com.bd/politics/2018/04/25/155080.html
BYবিশেষ প্রতিনিধি
২৫ এপ্রিল, ২০১৮ ইং ২১:০২ মিঃ
আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম আদালতে আইনী লড়াইয়ের মাধ্যমে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আগামী নির্বাচনে অংশ নিতে বিএনপি নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, আদালতের মাধ্যমে খালেদা জিয়া কারাগারে গেছেন। আদালতের মাধ্যমে বের করে আনুন। ভাল আইনজীবী নিয়োগ করুন। বুধবার ডা. শহীদ মিলন হলে বঙ্গববন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ২১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানিয়ে বলেন, আন্দোলনের হুমকি দিয়ে লাভ নেই, আওয়ামী লীগ ভয় পাওয়ার দল না, জনগণ ছাড়া আওয়ামী লীগ কাউকে ভয় পায় না।আগামী নির্বাচন হবে স্বচ্ছ নিরপেক্ষ। বিএনপির উচিৎ নির্বাচনে অংশগ্রহণের প্রস্তুতি গ্রহণ করা। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়ার সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর সাবেক স্বাস্থ্য উপদেষ্টা ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাচিপ সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান, বিএমএ মহাসচিব ডা. ইহতেশামুল হক, স্বাচিপের মহাসচিব অধ্যাপক ডা. আব্দুল আজিজ প্রমুখ। নির্বাচনকালীন সরকার জাতীয় নির্বাচনে কোন হস্তক্ষেপ করবে না : এদিকে দুপুরে রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে বিশ্ব ম্যালেরিয়া দিবসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, নির্বাচনকালীন সরকার জাতীয় নির্বাচনে কোন হস্তক্ষেপ করবে না। তাই নির্বাচন কমিশনের তত্ত্বাবধানেই সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব। তিনি বলেন, বিএনপি যতোই নির্বাচনে অংশ না নেয়ার হুমকি দিক না কেন তারা নির্বাচনে বাইরে থাকবে না। তিনি আরো বলেন, কোনো শর্ত দিয়ে নির্বাচনের আগে তারা নির্বাচনকে যদি ব্যাহত করতে চায় তাহলে তারা ভুল করবে। নির্বাচন ছাড়া আমাদের সামনে বিকল্প কিছু নেই আমাদের কাছে। সঠিক সময়েই নির্বাচন হবে। তারা (বিএনপি) জনগণের কাছে যাক। তারা নির্বাচনে আসুক, জনগণ কাদের ক্ষমতায় দেখতে চাইলে প্রমাণ হয়ে যাবে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (রোগ নিয়ন্ত্রণ) অধ্যাপক ডা. সানিয়া তহামিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, স্বাস্থ্য অধিদফতরের ডিপিএম (ম্যালেরিয়া ও এডিস বাহিত রোগ) ডা. এম এম আক্তরুজ্জামান প্রমুখ। শিশুমৃত্যু শূন্যে নামানোর অঙ্গীকার থাকবে ইশতেহারে : বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘প্রতিটি নবজাতককে বাঁচাতে হবে’ (লেটস সেইভ এভরি নিউবর্ন) শীর্ষক এই গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ও জাতিসংঘ শিশু তহবিল- ইউনিসেফ এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এ বৈঠকে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশু মৃত্যুর হার গত কয়েক দশকে কমে এলেও নবজাতকের মৃত্যুহার এখনও একটি বড় চ্যালেঞ্জ। বাংলাদেশে প্রতিদিন ১৭০টি শিশুর মৃত্যু হয়, যাদের বয়স চার সপ্তাহের কম। কেবল তিনটি বিষয় নিশ্চিত করতে পারলে এর ৮৮ ভাগ মৃত্যু সহজেই ঠেকানো সম্ভব। সেই লক্ষ্য নিয়ে ইউনিসেফ ‘এভরি চাইল্ড অ্যালাইভ’ নামে একটি প্রচারাভিযান শুরু করেছে। এ বছরের শেষে অনুষ্ঠেয় জাতীয় নির্বাচনে রাজনৈতিক দলগুলোর ইশতেহারে নবজাতকদের সুরক্ষার বিষয়টি যাতে যুক্ত করা হয়, সে প্রসঙ্গও আসছে এ গোলটেবিল আলোচনায়। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এই আলোচনায় অংশ নিয়ে আশ্বাস দিয়েছেন, আওয়ামী লীগের আগামী নির্বাচনী ইশতেহারে এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট অঙ্গীকার থাকবে। আগামী জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে শিশু মৃত্যুর হার শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনার অঙ্গীকার যুক্ত করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে বড় একটা অঙ্গীকার থাকবে, যে কোনো মূল্যে শিশুমৃত্যুর হার কমিয়ে শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনতে চাই।’ ইত্তেফাক/ইউবি