ঢাকা, সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬

পাকিস্তানের বিপক্ষে হেসেখেলেই জিতল ভারত

http://www.ittefaq.com.bd/sports/2018/09/19/171588.html
BYঅনলাইন ডেস্ক
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং ২৩:৪৮ মিঃ

এশিয়া কাপের গ্রুপপর্বে পাক-ভারত লড়াইটা জমজমাট হলো না। একপেশে ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে হেসেখেলেই জিতল ভারত। ‘এ’ গ্রুপের শেষ ম্যাচে বুধবার পাকিস্তানের দেওয়া ১৬৩ রানের লক্ষ্য ২৯ ওভারেই দুই উইকেট হারিয়েই পূরণ করতে সক্ষম হয়েছে রোহিতের নেতৃত্বাধীন টিম ইন্ডিয়া। এতে ‘এ’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে সুপার ফোর নিশ্চিত করল ভারত। আর পাকিস্তান খেলবে দ্বিতীয় দল হিসেবে। এই গ্রুপ থেকে হংকং দুই ম্যাচ হেরে আগেই বিদায় নিয়েছে। লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ান বেশ দাপুটে সূচনা করেছিলেন। ১৩ ওভারেই তারা তোলেন ৮৬ রান। তবে চতুর্দশ ওভারে এসে ব্যক্তিগত প্রথম বলেই রোহিতকে ফেরাতে সক্ষম হন তিনি। আউট হওয়ার আগে ৩৯ বল থেকে ছয়টি চার ও তিনটি ছক্কার মারে তিনি করেন ৫২ রান। পরে দলীয় ১০৪ রানে শিখর ধাওয়ান (৪৬) আউট হয়ে যান। এরপর আম্বাতি রাইডু ও দিনেশ কার্তিক তৃতীয় উইকেট জুটিতে বাকি পথ পাড়ি দিতে সক্ষম হন। রাইডু ও কার্তিক উভয়েই ৩১ রান করেন। এর আগে টস জিতে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ৪৩.১ ওভারে ১৬২ রানেই গুটিয়ে যায় পাকিস্তানের ব্যাটিং লাইন।ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ৩ রানে দুই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে তারা। দুই ওপেনার ইমাম-উল হক ও ফখর জামান ফিরে যান। বাবর আজম ও শোয়েব মালিক তৃতীয় উইকেট জুটিতে সেই চাপ খানিকটা কাটিয়ে ওঠতে সক্ষম হয়েছিলেন। তবে দলীয় ৮৫ রানে বাবর আউট হওয়ার পর চিত্র পাল্টে যায়। এরপর থেকে ব্যাটসম্যানরা একের পর এক ব্যর্থতার গল্পটা দীর্ঘ করতে থাকে। ১২১ রানের মধ্যে সাত উইকেট হারিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে পাকিস্তান। দলীয় স্কোরে ৩৬ রান যোগ হতেই একে একে তাকে অনুসরণ করেন সরফরাজ আহমেদ, শোয়েব মালিক, আসিফ আলী ও শাদাব খান। এদের মধ্যে বাবর আজম (৪৭) ও শোয়েব মালিক (৪৩) ছাড়া কেউ দুই অঙ্ক ছূঁতে পারেননি। পরে মোহাম্মদ আমির (১৮*) ও ফাহিম আশরাফের (২১) চেষ্টায় পাকিস্তান ১৬২ রান করতে সক্ষম হয়। ভারতের ভুবনেশ্বর কুমার ও কেদার যাদব তিনটি করে উইকেট নিয়েছেন। এছাড়া জাসপ্রিত বুমরাহ নিয়েছেন দুটি উইকেট। গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে আগামীকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ মুখোমুখি হবে আফগানিস্তানের। ‘বি’ গ্রুপ থেকে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান উভয়েই সুপার ফোর নিশ্চিত করেছে। বিদায় নিয়েছে শ্রীলঙ্কা। ইত্তেফাক/কেআই