ঢাকা, সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

অপহরণের পর মুক্তিপণ দাবি: গেণ্ডারিয়ায় গ্রেফতার ৫

https://www.jagonews24.com/national/news/439956
BYনিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: ১২:১০ পিএম, ১৬ জুলাই ২০১৮ | আপডেট: ০২:৪৫ পিএম, ১৬ জুলাই ২০১৮

রাজধানীর গেণ্ডারিয়ায় এক ব্যক্তিকে অপহরণ ও দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবির অভিযোগে অপরাধী চক্রের ৫ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। রোববার (১৫ জুলাই) রাতে গেণ্ডারিয়া এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করে গেন্ডারিয়া থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন সবুজ (৪২), বশির (৩০), ফারুক (৩৬), লাভলু (৪০) ও জালাল মিয়া (৩৬)।

সোমবার সকালে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ওয়ারী বিভাগের কমিশনার (ডিসি) মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন বলেন, ‘ভিকটিম আবদুল হক রাজ শাহ সিমেন্ট কোম্পানিতে এস আর (সেলস রিপ্রেজেন্টেটিভ) পদে চাকরি করেন। ১২ জুলাই আশা নামের এক মেয়ে তাকে ফোন করে তার কন্সট্রাকশন সাইটের জন্য অনেক সিমেন্ট লাগবে বলে গেন্ডারিয়ার সোনালী নুপুর কমিউনিটি সেন্টারের সামনে নিয়ে আসে।

পরে কন্সট্রাকশন সাইটের লোকজনের সাথে কথা বলার জন্য তাকে টঙ্গীর দত্তপাড়ার একটি তিনতলা বাসায় নিয়ে যায়। সেই বাসায় আগে থেকেই অবস্থান নেয় আসামিরা। তারা রাজকে জোড় করে আটকে রেখে ভয়ভীতি প্রদর্শন ও মারধর করে এবং মুক্তিপণ হিসেবে বিকাশের মাধ্যমে ২ লাখ টাকা আনার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। পুলিশের তৎপরতায় ভিকটিমকে নিয়ে আসামিরা স্থান পরিবর্তন করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আসামিরা রাজকে তুরাগে জালাল মিয়া নামের একজনের বাড়িতে নিয়ে আটকে রাখেন এবং মুক্তিপণের টাকার জন্য নির্যাতন করে। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গেণ্ডারিয়া থানা পুলিশ রাতে রাজকে জালালের বাসা থেকে উদ্ধার করে। এ সময় বশির, ফারুক, জালালকে গ্রেফতার করা হয় এবং তাদের দেয়া তথ্য মতে টঙ্গী থেকে সবুজ ও লাভলুকে গ্রেফতার করা হয়।’

এই ঘটনায় গেন্ডারিয়া থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে। মামলার পলাতক আসামি আশাকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান ডিসি ওয়ারী।

জেইউ/এআর/এমবিআর/এসআর/পিআর