ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৭

বাংলাদেশের কাছে হারের পর বিশ্বাসটাই উঠে গিয়েছিল মরগানের

https://www.jagonews24.com/sports/cricket/513044
BYস্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক প্রকাশিত: ০১:২৪ এএম, ১২ জুলাই ২০১৯

গত বিশ্বকাপ আর এবারের বিশ্বকাপ, দুই আসরে যেন দুই মেরুতে ইংল্যান্ড। গতবার বাংলাদেশের কাছে হেরে গ্রুপপর্ব থেকেই ছিটকে পড়েছিল ইংলিশরা। চরম ব্যর্থতার পরিচয় দেয়া দলটিই এবারের বিশ্বকাপের ফাইনালে।

ইংল্যান্ডের এই ঘুরে দাঁড়ানোর গল্পটা ইয়ন মরগানের চেয়ে ভালো কেউ বলতে পারবেন না। তিনিই যে এই গল্পের অন্যতম কুশীলব! গত বিশ্বকাপে মরগানের নেতৃত্বেই চরম ব্যর্থ হয়েছিল ইংল্যান্ড।

২০১৫ বিশ্বকাপে ব্যর্থতার পরও অধিনায়ক সরিয়ে দেয়নি ইংলিশরা। বরং কোচ বদলে নতুন করে শুরু করে তারা। ট্রেভর বেলিসের কোচিংয়ে সেই ইংল্যান্ডই আমূল বদলে যায়। গত চার বছরে কেবল সাফল্য আর সাফল্যই দেখেছে ক্রিকেটের জনকরা। এমনি এমনিই তো আর ওয়ানডে ক্রিকেটে এক নম্বর দল হয়ে ওঠেনি!

তবে এবার ফেবারিট হিসেবে বিশ্বকাপে পা রাখা ইংলিশরা ফাইনালের মঞ্চে উঠেও ভুলে যায়নি সেই দুঃস্মৃতি। অস্ট্রেলিয়াকে উড়িয়ে দিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করার পর মরগানের চোখেমুখে রাজ্যের তৃপ্তি থাকাই স্বাভাবিক।

তারপরও অবলীলায় স্বীকার করলেন, এই ইংল্যান্ড এবার ফাইনাল খেলবে, এমন কথা বললে বিশ্বাস করতেন না তিনি। সেমি জয়ের পর ইংলিশ অধিনায়ক বলেন, ‘এটাই দেখাচ্ছে, গত চার বছরে আমরা কতদূর এসেছি। ২০১৫ বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়ার পর যদি কেউ আমাকে বলতো (চার বছর পর ফাইনালে উঠার কথা), তবে আমি কিছুতেই বিশ্বাস করতাম না।’

ফেবারিট হিসেবে টুর্নামেন্ট শুরু করলেও অবশ্য এবার কম কাঠখড় পোহাতে হয়নি মরগানের দলকে। গ্রুপপর্বে পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা আর অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে প্রায় ছিটকে পড়তে যাচ্ছিল ইংলিশরা। সেখান থেকে ভারত আর নিউজিল্যান্ডের মতো দুই দলকে হারিয়ে শেষ চার নিশ্চিত করে তারা।

মরগান বলেন, ‘এই ফাইনাল আমাদের জন্য বড় একটা সুযোগ। আমরা ২০১৫ সালে কোথায় ছিলাম আর এখন কোথায়! রীতিমতো নাটকীয় উন্নতি, যেটার কৃতিত্ব পুরো ড্রেসিংরুমের।’

এমএমআর/বিএ