ঢাকা, শনিবার, ২১ জুলাই ২০১৮, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

কারলাইলের ভারতে সংবাদ সম্মেলন করার উদ্যোগ অসৌজন্যমূলক

http://www.kalerkantho.com/online/Court/2018/07/13/657431
BYনিজস্ব প্রতিবেদক   

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজার বিষয়ে ব্রিটিশ আইনজীবী লর্ড কারলাইলের ভারতে সংবাদ সম্মেলন করার উদ্যোগের সমালোচনা করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান। তিনি বলেছেন, একটি স্বাধীন দেশের বিচারব্যবস্থা নিয়ে অন্য দেশের একজন আইনজীবী ভিন্ন কোনো দেশে গিয়ে বক্তব্য দিতে পারেন না। এটা অসৌজন্যমূলক। সুস্থ কোনো ব্যক্তি এটা করতে পারে না। গতকাল বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্ট চত্বরে সাংবাদিকদের কাছে এ অভিমত দেন তিনি।

ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ বিচার শেষে গত ৮ ফেব্রুয়ারি রায় দেন। রায়ে খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এ রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার করা আপিল হাইকোর্টে বিচারাধীন। এ অবস্থায় মামলা নিয়ে খালেদা জিয়ার আইনি পরামর্শক লর্ড কারলাইল ভারতের দিল্লিতে সংবাদ সম্মেলন করার উদ্যোগ নেন। এ জন্য তিনি ১১ জুলাই ভারতে আসেন। কিন্তু বিমানবন্দরে নামার পর ভারত সরকার তাঁর ভিসা বাতিল করে তাঁকে ফেরত পাঠায়।

এ অবস্থায় গতকাল দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান সাংবাদিকদের বলেন, তিনি (লর্ড কারলাইল) একজন উঁচু মাপের আইনজীবী। কিন্তু তিনি যে কাজটা করতে যাচ্ছিলেন সেটা অত্যন্ত অসৌজন্যমূলক। তিনি ভারতে গিয়ে একটি স্বাধীন রাষ্ট্রের বিচারব্যবস্থা নিয়ে মন্তব্য করবেন, সমালোচনা করবেন—এটা সুস্থ কোনো মানুষ গ্রহণ করবে না।

অন্য কোনো দেশে বসে যদি এ বিষয়ে তিনি মন্তব্য করেন সে ক্ষেত্রে কি আপনারা তাঁর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনবেন? এমন প্রশ্নে দুদকের আইনজীবী বলেন, ‘আদালত অবমাননার অভিযোগ আনতে হলে ঘটনা ঘটতে হবে বাংলাদেশের মধ্যে। আমাদের সীমার মধ্যে বসে মন্তব্য করলে তবেই তাঁর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনা যাবে। তার পরও যদি এ মামলা নিয়ে তিনি সংবাদ সম্মেলন করেন, অবশ্যই তা আদালতের নজরে আনব।’