ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ৮ কার্তিক ১৪২৬

অপহরণের ৭ দিন পর স্বর্ণ ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৫

http://www.kalerkantho.com/online/country-news/2018/02/14/602138
BYনিজস্ব প্রতিবেদক, নোয়াখালী   

অপহরণের ৭ দিন পর আজ বুধবার ভোরে নোয়াখালী জেলার চাটখিলের খিলপাড়া ইউনিয়নের অমরপুর গ্রামের সিরাজ মেম্বারের বাড়ীর পাশে ডোবা থেকে স্বর্ণ ব্যবসায়ী নিতাই দেবনাথ (৪০) এর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিতাই দেবনাথ কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার নারায়ন দেবনাথের ছেলে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ লাকসাম থেকে ৩ এবং চাটখিলে ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

জানা যায় গত ৭ ফেব্রুয়ারী কুমিল্লা জেলার মনোহরগঞ্জ উপজেলার আশিরপাড়া বাজারের স্বর্ণ ব্যবসায়ী দোকান থেকে বাড়ী যাওয়ার কথা থাকলেও বাড়ী ফেরেনি। বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজি করে তার পরিবার পরিজন তার খোঁজ পায়নি। এ ঘটনায় নিতাইয়ের ভাই গোরাঙ্গ দেবনাথ লাকসাম থানায় তার ভাইয়ের খোঁজ না পেয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করে।

পুলিশ বিভিন্ন সূত্র ধরে গতকাল মঙ্গলবার লাকসাম থেকে ৩ জনকে আটক করে। তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী লাকসাম থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মাহফুজ একদল পুলিশ নিয়ে নোয়াখালীর চাটখিলে এসে চাটখিল থানা পুলিশের সহযোগিতা অভিযান চালিয়ে চাটখিলের শংকরপুর গ্রামের নুর আলমের ছেলে লিটন (২৭) এবং ওমরপুর গ্রামের দুলালের ছেলে বেলাল (২৫) কে আটক করে। তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী একটি পরিত্যক্ত ডোবা থেকে গলাকাটা বস্তাবন্দি নিতাইয়ের লাশ উদ্ধার করে। এ সময় নিতাইয়ের ব্যবহিত ঘড়ি, আংটি, মানিব্যাগ ও কিছু কাগজপত্র উদ্ধার করে। পরে আটককৃত ৫ জনকে এ হত্যা কান্ডে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

লাকসামে আটককৃতরা নিতাইকে ৭ ফেব্রুয়ারি রাতে বাড়ী ফেরার পথে মোটর সাইকেলে করে লাকসাম থেকে নিতাইকে উঠিয়ে এনে চাটখিলের ঘটনার স্থলে এনে তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করে লাশ ডোবায় ফেলে রেখে।

চাটখিল থানার ওসি জহিরুল আনোয়ার জানান, ঘটনাটি যেহেতু লাকসামের এ বিষয়টি লাকসাম থানা পুলিশয়ে ব্যবস্থা নিবে। লাকসাম থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল মাহফুজ বলেন তদন্তের স্বার্থে লাকসামের গ্রেপ্তারকৃত ৩ জনের নাম না জানালেও তিনি জানান প্রেস কনফারেন্স করে বিষয়টি সকলকে জানানো হবে। তবে সংঘটিত ঘটনাটি পরিকল্পিত।