ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৬

কালোবাজারে বিক্রি করা ১০০ বস্তা ভিজিএফ চাল উদ্ধার

http://www.kalerkantho.com/online/country-news/2018/08/20/671761
BYজামালপুর প্রতিনিধি   

জামালপুর সদর উপজেলার কেন্দুয়া ইউনিয়নের কালিবাড়ী বাজারের খাদ্য ব্যবসায়ীর আড়ত থেকে ১০০ বস্তা ভিজিএফ চাল উদ্ধার করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। রবিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এস এম মাজহারুল ইসলাম কালিবাড়ি বাজারের খাদ্যব্যবসায়ী ছানুয়ার হোসেন মানুর আড়তে এ অভিযান চালান।

জানা গেছে, ঈদুল আজহা উপলক্ষে কেন্দুয়া ইউনিয়নের দু:স্থদের জন্য বরাদ্দের বিপুল পরিমাণ ভিজিএফ চাল কালোবাজারে বিক্রি করা হয়েছে, এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এস এম মাজহারুল ইসলাম রবিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে সদরের কেন্দুয়া ইউনিয়নের কালিবাড়ি বাজারে অভিযান চালান। এ সময় খাদ্য ব্যবসায়ী ছানুয়ার হোসেন মানুর আড়ত থেকে ১০০ বস্তা ভিজিএফ চাল উদ্ধার করা হয়। প্রতিটি ৫০ কেজি ৫০০ গ্রাম ওজনের ১০০ বস্তায় মোট ৫ মেট্রিক টন চাল রয়েছে। জামালপুর সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আসাদুজ্জামান পুলিশ ফোর্সসহ এ অভিযানে অংশ নেন।

ভিজিএফ চাল কালোবাজারে বিক্রির সঙ্গে জড়িতদের সম্পর্কে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাৎক্ষণিকভাবে কোনো কিছু নিশ্চিত হতে পারেনি। অভিযানের সময় ছানুয়ার হোসেন মানুকে পাওয়া যায়নি। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার আড়তের দু’জন শ্রমিককে আটক করা হয়েছে। আটক শ্রমিকরা হলেন- কেন্দুয়া ইউনিয়নের চরশি নয়াপাড়া গ্রামের নাছির উদ্দিনের ছেলে আবুল কালাম ও কালিবাড়ী গ্রামের মোস্তফা মিয়ার ছেলে মো. জুয়েল। তাদেরকে জামালপুর সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। পরে রাত দেড়টার দিকে চালগুলো জব্দ করে জামালপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের জিম্মায় আনা হয়েছে।

সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এস এম মাজহারুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘জব্দ করা ১০০ বস্তা ভিজিএফ চাল সদর উপজেলা পরিষদের জিম্মায় রাখা হয়েছে। আটক দুই শ্রমিককে সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে আজ সোমবার আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’