ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫

চাঁদপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর জেলেদের হামলা

http://www.kalerkantho.com/online/country-news/2018/10/16/692333
BYচাঁদপুর প্রতিনিধি   

চাঁদপুরেমতলব উত্তরের মেঘনা নদীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর জেলেরা হামলা চালিয়েছে। এই সময় সঙ্গে থাকা পুলিশশর্টগানের গুলি ছুঁড়ে নিজেদের রক্ষা করে। ঘটনায় জেলেদের ছোঁড়া পাথরের আঘাতে একজন মৎস্য কর্মকর্তা আহত হন।

আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার ষাটনল এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিকেলে নৌ ও জেলা পুলিশ এবং মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তাদের নিয়ে মা ইলিশ রক্ষায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জন্য নদীতে যান মতলব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। মেঘনা নদীর ছটাকি থেকে ষাটনল যাবার পথে বেশকিছু মাছ ধরার নৌকা তার নজরে আসে। এ সময় নিষেধাজ্ঞা না মেনে মাছ ধরার কারণ জানতে চাওয়া মাত্র সংঘবদ্ধ জেলেরা পাথর ও লগি বৈঠা নিয়ে হামলা চালায়। এই ঘটনায় নিক্ষিপ্ত পাথরের আঘাতে মোস্তাফিজুর রহমান নামে একজন মৎস্য কর্মকর্তা আহত হন। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। মোস্তাফিজুর রহমান পাবনা সদর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা। মা ইলিশ রক্ষা কার্যক্রমে প্রেষণে দায়িত্ব পালন করছিলেন তিনি। অন্যরা স্পিডবোটের খোলে গিয়ে আশ্রয় নিয়ে নিজদের আত্মরক্ষা করেন। ঘটনার প্রেক্ষিতে পুলিশ ১৮ রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে, মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার জানান, এই ঘটনার পররপই সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে ৮ জেলেকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৫টি মাছ ধরার নৌকা এবং ১ লাখ ২০ হাজার মিটার জাল জব্দ করা হয়। আটক এই ৮ জন হচ্ছে, স্বপন চন্দ্র, হরে কৃষ্ণ, সঞ্জিত দাস, সুভাষ দাস, মনা চন্দ্র, মিঠুন চন্দ্র, নিরঞ্জন বর্মন ও রবি দাস। রাতেই আটক এই ৮ জেলেকে একবছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অন্যদিকে, হামলার ঘটনায় পুলিশ দায়ীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের প্রস্তুতি নিচ্ছে। জব্দ করা জাল ও মাছ ধরা নৌকাগুলো আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়েছে।