ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৬

নবাবগঞ্জে উদ্ধারকৃত মরদেহের মাথার সন্ধান মেলেনি

http://www.kalerkantho.com/online/country-news/2018/11/09/701671
BYহিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ থানা পুলিশের উদ্ধারকৃত নুরুজ্জামান সরকারের (পুষি) মস্তকবিহীন লাশের মাথার সন্ধান এখনো মেলেনি। ধান ক্ষেতে পাওয়া গেছে তার পরনের কাপড়।

মাগুরা গ্রামের মাঠে ধান ক্ষেতের ভেতরে যেখান থেকে তারমেরদেহ উদ্ধার করা হয়েছিল, সেখান থেকে কয়েক বিঘা জমির দূরত্বে ধান ক্ষেতের ভেতর থেকে শুক্রবার তার পরনের শার্ট, প্যান্ট, জাঙ্গিয়া ও জ্যাকেট উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশের উপস্থিতিতে জনতা তার মরদেহের মাথার খোঁজ করার সময় ওই কাপড়গুলো পাওয়া যায়। এ সময় সেখানে উৎসুক জনতার ভিড় জমে যায়।

এছাড়াও সন্দেহভাজন এক জনের বাড়ি থেকে একটি ছুরি জনতা উদ্ধার করে পুলিশকে দিয়েছে বলে মাগুরা গ্রামের ইউপি সদস্য রুবেল মিয়া জানান।

গত ৮ নভেম্বর বৃহস্পতিবার নবাবগঞ্জ থানা পুলিশ উপজেলার শালখুরিয়া ইউনিয়নের মাগুরা গ্রামের মাঠের ধান ক্ষেত থেকে বিরামপুর উপজেলার মাহালি পাড়ার নঈমুদ্দিন মাস্টারের ছেলে কাঠ ব্যবসায়ী নুরুজ্জামান সরকারের (পুষি) মস্তক বিহীন বিবস্ত্র লাশ উদ্ধার করে। সেই সাথে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে মাগুরা গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে রফিকুল ইসলামকে আটক করে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে ওই দিনই পুষির বড় ভাই মনিরুজ্জামান সরকার বাদী হয়ে নবাবগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আটক রফিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

পুষির পরিবার জানায়, গত বুধবার বিকেলে মাগুরা গ্রামের রফিকুল ইসলামের নিকট পাওনা টাকা নিতে গিয়ে পুষি আর বাড়ী ফিরে আসিনি। পর দিন বৃহস্পতিবার তার লাশ পাওয়া যায়। তার ব্যবহৃত মটর সাইকেলটি উদ্ধার করা হয় রংপুরের মিঠাপুকুর এলাকা থেকে।

নবাবগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শামসুল আলম জানান, লাশের মাথা উদ্ধার ও মামলার অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে জোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে।