ঢাকা, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

সাবেক মেম্বারের মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দিলেন আ. লীগ নেতা

http://www.kalerkantho.com/online/country-news/2018/11/13/703040
BYকেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

কেরানীগঞ্জের তারানগর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড আ. লীগের সভাপতি ও ওই ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার দুলাল মিয়ার ওপর সোমবার বিকালে সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ উঠেছে। হামলার সময় তিনি দৌড়ে প্রাণে বাঁচলেও তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি পুড়িয়ে দেয়া হয়।

দুলাল মিয়ার অভিযোগ, জেলা আ. লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সিদ্দিকের নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় তিনি কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

দুলাল মিয়া জানান, আবু সিদ্দিক সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। প্রতিদিন মদ্যপান করে এলাকায় অশান্তির সৃষ্টি করেন। সাধারণ মানুষকে হয়রানি করেন। এসব নিয়ে মাস দেড়েক আগে তিনি পুলিশ সুপার বরাবর আবু সিদ্দিকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেন। এতে ক্ষুব্ধ হন আবু সিদ্দিক। এরপর থেকে তাকে নানাভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল আবু সিদ্দিক।

তিনি আরো জানান, সোমবার বেলা ৩টার দিকে এক বন্ধুকে নিয়ে মোটরসাইকেল যোগে তিনি বাড়ির দিকে যাচ্ছিলেন। তারানগর ইউনিয়ন পরিষদের সামনের রাস্তায় পৌঁছলে আবু সিদ্দিক, শাওন, মজিবর, সিফাত, সাব্বিরসহ ১৭/১৮ জন সন্ত্রাসী অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তাকে ধাওয়া করে। এ সময় তিনি ও তার বন্ধু মোটরসাইকেল ফেলে দৌড়ে পালিয়ে যান। পরে সন্ত্রাসীরা তার মোটরসাইকেলটি পুড়িয়ে দেয়।

তারানগর ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন ফারুক জানান, ইউনিয়ন পরিষদের সামনের সড়কে আ. লীগ নেতা আবু সিদ্দিকের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা সাবেক মেম্বার দুলাল মিয়ার মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দিয়েছে।

এ বিষয়ে আ. লীগ নেতা আবু সিদ্দিক মুঠোফোনে বলেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুলাল মিয়া নাটক সাজিয়েছে। নিজেদের মোটরসাইকেল তারা নিজেরাই পুড়িয়ে আমি ও আমার লোকজনের নামে অপবাদ দিচ্ছে। তিনি আরো বলেন, একটি মামলায় সোমবার আদালতে আমার হাজিরা ছিল। সারাদিন আমি আদালতে ছিলাম।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।