ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৭

এনজিওর কিস্তি শোধ করতে না পারায় গ্রাহককে মারধর

http://www.kalerkantho.com/online/country-news/2019/04/25/762454
BYমানিকগঞ্জ প্রতিনিধি   

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া এনজিওর ঋণের কিস্তি শোধ করতে না পারায় ঋণ গ্রহিতা নজরুল ইসলাম (৩৪) আটকে রেখে মারধর করেছে আম্বালা ফাউন্ডেশনের এনজিও কর্মীরা। পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নজরুলকে উদ্ধার করে।

গতকাল বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেরার চর সাটুরিয়া আম্বালা ফাউন্ডেশনের কার্য়লয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই এনজিওর ব্যবস্থাপকসহ চারজনকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

আকটকৃতরা হচ্ছে, ওই এনজিওর এরিয়া ম্যানেজার কামরুজ্জামান, সাটুরিয়া শাখার ম্যানেজার মারুফ, ক্রেডিট অফিসার সাগর এন্টারপ্রাইজ অফিসার মাহাবুব।

জানা গেছে জানা গেছে, সাটুরিয়া উপজেলার বরাঈদ এলাকার পয়লা গ্রামের মৃত ছামাদ আলীর ছেলে নজরুল ইসলাম আম্বালা ফাউন্ডশনের সাটুরিয়া শাখা থেকে গত দেড় বছর আগে দুই লাখ টাকা দুই বছর মেয়াদি কিস্তিতে দেওয়া শর্তে তুলেন। এ সময় শর্ত মোতাবেক জমির দলিলসহ ফাঁকা চেক ওই এনজিওতে জমা দেন। ইতিমধ্যে ঋণের এক লাখ ৪৮ হাজার টাকা কিস্তির মাধ্যমে শোধ করেন।

কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে সংসারে অভাব-অনাটনের কারণে কয়েকটি কিস্তি দেওয়া বাকি পরে। অফিসে, সঞ্চয় ও ডিপিএস মিলে ২৭ হাজার টাকা জমা রয়েছে। বুধবার বিকালে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য এনজিওর অফিসে দেখা করতে গেলে অফিসের কর্মীরা তাকে আটকে রেখে মারধর করে।

এ বিষয়ে আম্বালা ফাউন্ডেশনের ম্যানাজার মো. মারুফ মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ওই লোকটিকে বসিয়ে রাখা হয়েছিল।

সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মতিয়ার রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কালের কণ্ঠকে বলেন, ঋণ গ্রহীতা নজরুলকে ওই এনজিওতে মরধর করে আটকে রাখা হয়েছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। সঙ্গে ওই এনজিওর চারজনকে আটক করা হয়েছে। তবে ভুক্তভোগীর অভিয়োগ না থাকায় উভয় পক্ষকে নিয়ে মীমাংসার প্রক্রিয়া চলছে।