ঢাকা, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯, ৯ বৈশাখ ১৪২৭

বহু চেষ্টার পরেও ভারতে প্রশ্নফাঁস ঠেকানো গেল না

http://www.kalerkantho.com/online/miscellaneous/2019/02/12/736524
BYকালের কণ্ঠ অনলাইন   

অনেক চেষ্টার পরেও মাধ্যমিকের প্রশ্ন ফাঁস আটকাতে ব্যর্থ হয়েছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। মঙ্গলবার বাংলা (প্রথম ভাষা) পরীক্ষা শুরু হওয়ার ৩০ মিনিটের মধ্যেই প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে সেই প্রশ্নপত্র।

পর্ষদের পক্ষ থেকে প্রথমে বিষয়টি অস্বীকার করা হয়। পরে অবশ্য স্বীকার করে নিয়ে অভিযোগ দায়ের করে শিক্ষা দপ্তর। এত কড়া নিরাপত্তা সত্ত্বেও, কীভাবে প্রশ্ন ফাঁসের মতো ঘটনা ঘটল? তা নিয়ে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের কাছে রিপোর্ট তলব করেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

পরীক্ষাকেন্দ্রে শিক্ষক-শিক্ষিকা থেকে শুরু করে সবার মোবাইল ফোন ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল পর্ষদ। মোবাইল ফোন না নিয়ে যাওয়ার জন্য অনুরোধও করা হয়েছিল। সেন্টার ইনচার্জছাড়া কারো কাছে মোবাইল রাখা যাবে না বলে নির্দেশও দেয়া হয়। পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে মোবাইল নিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রবেশ একেবারেই নিষিদ্ধ ছিল। এ নিয়ে যেন কোনো অনিয়ম না হয়, সেজন্য প্রতিটা পরীক্ষাকেন্দ্রে ছিল সরকারি নজরদারিও।

এত কিছুর পরেও ফাঁস হয়ে গেল প্রশ্নপত্র। একটি সূত্র মারফত জানা গেছে, বর্ধমান, নদিয়া এলাকা থেকে ওই প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে। ইতোমধ্যেই এ বিষয়ে খোঁজখবর নিতে শুরু করেছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ।