ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

নির্বাচিত কমিটি না থাকায় কোয়াবে সন্ত্রাসীদের দাপট

http://www.kalerkantho.com/online/national/2018/05/17/637187
BYনিজস্ব প্রতিবেদক   

ক্যাবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (কোয়াব) কোনো নির্বাচিত কমিটি না থাকায় এই ব্যবসায় এখন বিশৃঙ্খল অবস্থা বিরাজ করছে। পেশি শক্তি দিয়ে ক্যাবল অপারেটরদের ব্যবসা দখলসহ সন্ত্রাসী কার্যক্রম বেড়েছে। এর থেকে উত্তোরণের জন্য দ্রুত এই সংগঠনটির নির্বাচন দেওয়া প্রয়োজন। অন্যথায় ধ্বংসের মুখে চলে যাবে শিল্পটি।

গতকাল বিকাল ৩ টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর রুনী হলে সংবাদ সম্মেলন করে এই সব কথা জানিয়েছে কোয়াবের ঐক্য পরিষদ।

কোয়াবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এসএম আনোয়ার পারভেজ জানান, ২০১০ সাল থেকে ৮ বছর ধরে কোয়াবের নির্বাচিত কোন কার্যনির্বাহী কমিটি নেই। কিছু সদস্য অযৌক্তিকভাবে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করার কারণে নির্বাচনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়।

আনোয়ার পারভেজ বলেন, মামলা নিষ্পত্তির জন্য আমরা দীর্ঘ সময় ধরে মামলার বিবাদী হিসেবে অংশ গ্রহণ করি। মহামান্য হাইকোর্ট, চেম্বার জজ, সর্বোপরি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানী শেষে আগামী তিন মাসের মধ্যে নির্বাচন সম্পন্ন করার জন্য কোয়াব প্রশাসনকে নির্দেশ প্রদান করেন। যা ক্যাবল টিভি খাতের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন ছিল। কোয়াবের নির্বাচিত কমিটি না থাকায় ক্যাবল অপারেটরদের এই ব্যবসায় বর্তমানে অনেক বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। পেশি শক্তি কর্তৃক ব্যবসা দখল ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম বৃদ্ধি পেয়েছে। আমাদের সাথে আপনারা নিশ্চয়ই একমত হবেন যে, এহেন পরিস্থিতিতে কোয়াবের একটি নির্বাচিত কমিটি থাকা অত্যন্ত প্রয়োজন। আমরা আশা করি আগামী তিন মাসের মধ্যে নির্বাচন সম্পন্ন হলে এহেন ঘটনা অনেকাংশে লাঘব হবে।’

তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের আদেশ মোতাবেক অতি দ্রুত নির্বাচন সম্পন্ন করার জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতি আহ্বান জানান।

সংবাদ সম্মেলনে আনোয়ার পারভেজ ছাড়া মঞ্চে আরো উপস্থিত ছিলেন কোয়াবের কবীর উদ্দিন আহমেদ, নিজাম উদ্দিন মাসুদ, সেলিম সারোয়ার, ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, বিপ্লব প্রমুখ।