ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৬

সামুদ্রিক অবকাঠামো উন্নয়ন খাতে ঋণ দেওয়ার সুপারিশ

http://www.kalerkantho.com/online/national/2018/08/20/671760
BYনিজস্ব প্রতিবেদক   

সামুদ্রিক অবকাঠামো উন্নয়নের অংশ হিসেবে অন্য সেক্টরগুলোর মতো জাহাজ নির্মাণ খাতকে জিওবি খাত হতে সহজ শর্তে ঋণ/অনুদান প্রদানের বিষয়টি সক্রিয়ভাবে বিবেচনা করার সুপারিশ করেছে নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

গতকাল রবিবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে এই সুপারিশ করা হয়। কমিটির সভাপতি মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম, বীর উত্তমের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটি সদস্য নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান, এম আব্দুল লতিফ, রণজিৎ কুমার রায় ও মমতাজ বেগম এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংসদ সচিবালয় জানায়, বৈঠকে পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষ ও চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের কার্যক্রম এবং বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের (বিএসসি) কার্যক্রম ও সমস্যা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। এসময় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, চট্টগ্রাম বন্দরে ওভার ফ্লো কন্টেইনার টার্মিনাল, বে টার্মিনালে ডেলিভারী ইয়ার্ড, পতেঙ্গা কন্টেইনার টার্মিনাল, লালদিয়া মাল্টিপারপাস টার্মিনাল, বে-টার্মিনাল ফেইজ-১ এবং মাতার বাড়ি পোর্ট প্রকল্পগুলো ২০২৫ সালের মধ্যে বাস্তবায়িত হবে।

বৈঠকে জানানো হয়, বাংলাদেশ পেট্টোলিয়াম কর্পোরেশনের (বিপিসি) আমদানীকৃত ক্রড অয়েল পরিবহনের জন্য আন্তঃ মন্ত্রণালয় চার্টারিং কমিটির মাধ্যমে মাদার ট্যাংকার ভাড়া করাসহ পরিবহন সংক্রান্ত সব ধরনের কার্যক্রম বিপিসির পক্ষে বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন পরিচালনা করে থাকে।

এ ছাড়াও বাংলাদেশ এগ্রিকালচার ডেভলপমেন্ট কর্পোরেশনের (বিএডিসি) আমদানীকৃত সার উৎস থেকে দেশে পরিবহনের জন্য আন্তঃ মন্ত্রণালয় চার্টারিং কমিটির মাধ্যমে জাহাজ ভাড়া কার্যক্রম বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন কর্তৃক বিএডিসির চার্টারার এজেন্ট হিসেবে পরিচালনা করে থাকে।