ঢাকা, রবিবার, ০৫ এপ্রিল ২০২০, ২২ চৈত্র ১৪২৬

বৈচিত্র্যের মেলা ও বৈচিত্র্যের ঐকতান শনিবার

https://www.kalerkantho.com/online/national/2020/02/26/879184
BYনিজস্ব প্রতিবেদক   

মানুষে মানুষে মেলবন্ধন জোরদার করতে আগামী শনিবার চারুকলার বকুলতলায় বৈচিত্র্যের মেলা ও বৈচিত্র্যের ঐক্যতান অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে ইনস্টিটিউট ফর এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইইডি) ও গানের দল মাদল। দিনব্যাপী ওই অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে সকাল ১০টা থেকে আলোচনা, প্রদর্শনীসহ বৈচিত্র্যের মেলা এবং বেলা আড়াইটা থেকে বৈচিত্র্যের ঐক্যতান নামে গানের অনুষ্ঠান শুরু হবে। যা চলবে সন্ধ্যা পর্যন্ত।

আজ বুধবার বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এই কর্মসূচী ঘোষণা করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে মূল বক্তব্য উত্থাপন করেন আইইডি’র নির্বাহী পরিচালক নুমান আহম্মেদ খান। আলোচনায় অংশ নেন জনউদ্যোগের সমন্বয়ক তারিক হোসেন মিঠুল, সাংবাদিক নিখিল ভদ্র, আদিবাসী নেতা হরেন্দ্রনাথ সিং ও মাদলের এন্থনী রেমা।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, উন্নয়ন টেকসই, সুষম ও ভারসাম্যপূর্ণ করতে সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) ‘কাউকে পিছিয়ে রেখে নয়’ -এই মূলমন্ত্র যুক্ত করা হয়েছে। তার মানে সমাজের পিছিয়েপড়া, প্রান্তিক শ্রেণি, স্তর ও জাতিসত্তার মানুষকে অর্ন্তভূক্ত করার মাধ্যমে উন্নয়ন টেকসই ও পরবর্তী প্রজন্মের জন্য সুরক্ষিত হবে। সেই লক্ষ্যে ভিন্নধর্মী এই অনুষ্ঠানের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যে অনুষ্ঠানে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ১০টি সাংস্কৃতিক দল ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রতিনিধিরা উপস্থিত থাকবেন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, দেশে সাংস্কৃতিক অবক্ষয় ও মৌলবাদ-জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দেওয়ার অপচেষ্টা চলছে। এর বিপরীতে বাঙ্গালি ও বিভিন্ন জাতির মানুষের সম্মিলন, বোঝাপড়া, মিথস্ক্রিয়া এবং সাংস্কৃতিক আদান প্রদান জরুরী। কারণ এই এমন সম্মিলন দেশকে অসাম্প্রদায়িক, সামাজিক-সাংস্কৃতিকভাবে সহিষ্ণু ও বৈচিত্র্যময় করে তুলবে। সে জন্যই দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠান সফল করতে সকলের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।