ঢাকা, শনিবার, ২১ জুলাই ২০১৮, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

যৌনতা, মাদক, চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত ইমরান, দাবি রেহামের

http://www.kalerkantho.com/online/world/2018/07/12/657254
BYকালের কণ্ঠ অনলাইন   

বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না ইমরান খানের। আত্মজীবনীর পাণ্ডুলিপির কিছু অংশ প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই কখনো ধর্ষণের কখনো প্রাণনাশের হুমকি পাচ্ছেন রেহাম খান।

বই প্রকাশের পর সেই আগুনে যেন ঘি পড়ল। পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খানের ব্যক্তিজীবন, যৌনতা, নিয়মিত মাদক সেবনের অভ্যাস, চোরাচালান, জোর করে গর্ভপাতের অভিযোগ নিয়েই এখন চর্চা চলছে পাকিস্তানে। রেহামের বইয়ে ইমরানের সম্পর্কে এমনই কিছু বিস্ফোরক তথ্য প্রকাশ্যে এসেছে।

পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচনের আর কয়েকদিন বাকি। তার আগেই বিপাকে্ইমরান খান। বৃহস্পতিবার প্রকাশিত হয়েছে রেহামের আত্মজীবনী।

রেহাম তার বইয়ে লিখেছেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির স্ট্র্যাটেজি নিয়েই নাকি ইমরান পাকিস্তানে প্রধানমন্ত্রী পদে লড়তে চান।

তবে, এতেই থেমে থাকেননি রেহাম। রেহাম লিখেছেন, বাড়িতে যা কাঁচাবাজার আসত, সবই নাকি কোনো না কোনো নেতা দিয়ে যেতেন! খাইবার-পাখতুনখার প্রদেশে কাঠ মাফিয়াদের সঙ্গেও নাকি রীতিমতো যুক্ত ছিলেন ইমরান।

রেহামকেও বলেছিলেন, চোরাই কাঠ ব্যবহারের কথা। এরপরেই ইমরানের প্রতি বিদ্বেষ জন্মায় রেহামের।

মবি নামে এক পুরুষ বন্ধুর সঙ্গে অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ ছিলেন ইমরানের। তারা শারীরিক সম্পর্কেও লিপ্ত হয়েছিলেন, রেহাম এমনটাই লিখেছেন তার বইয়ে।

আত্মজীবনীতে ইমরানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফের বিরুদ্ধেও কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করেছেন রেহাম। দলের বিভিন্ন নেত্রীর সঙ্গে ইমরানের শারীরিক সম্পর্ক ছিল বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। উজমা কার্দার নামে এক নেত্রী নিজের যৌনাঙ্গের ছবি পাঠাতেন বিকৃতকাম ইমরানকে। তার উপস্থিতিতেই ইমরানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হতে বাধ্য করা হয় উজমাকে, বইয়ে এমনটাও উল্লেখ করেছেন তিনি।

গ্রেস জোনস নামে এক বিখ্যাত গায়কের সঙ্গে ইমরানের সম্পর্কের কথা রয়েছ বইটিতে। রয়েছে ইমরানের অজস্র পরিচয়হীন সন্তানের কথাও। অসংখ্য নারীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হতেন ইমরান। তাদের মধ্যে অনেককেই জোর করে গর্ভপাত করতে বাধ্য করেছিলেন তিনি।

বইয়ে রেহাম লিখেছেন, 'স্নরটিং কোকেন', বিভিন্ন ধরনের ঘুমের ওষুধ ছাড়াও নিষিদ্ধ মাদক সেবন করতেন ইমরান। প্রায়ই বাথরুমে সংজ্ঞা হারাতেন, বিস্মৃতির অসুখে ভুগতেন। এমনকি মাউথ-গার্ড ব্যবহার করতেন, যাতে মাদক সেবনের অভ্যাস কারো চোখে না পড়ে। নিয়মিত গাঁজাও খেতেন ইমরান। একবার তো নিজেকে ‘দিশাহারা নাস্তিক’ বলে পরদিন নাকি তা মনে করতেও পারেননি।

রেহামের বইয়ে উল্লেখ রয়েছে, ইমরান নাকি অভিশাপ দূর করতে কালাজাদুর অভ্যাস করতেন। রেহাম নিজের চোখে দেখেছেন তা।

ইমরান রেহামকে বলেছিলেন, ইমরানের সাবেক স্ত্রী জেমাইমার বদমেজাজের জন্যই নাকি বিয়ের রিসেপশনের দিন থেকেই ইমরানের সঙ্গে তার সম্পর্কে তিক্ততা তৈরি হয়েছিল। বইপ্রকাশের পর এখন পর্যন্ত ইমরানের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।