ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৭

২৭ ঘণ্টা পর রাজশাহীর রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

https://www.ntvbd.com/bangladesh/260997/২৭-ঘণ্টা-পর-রাজশাহীর-রেল-যোগাযোগ-স্বাভাবিক
BYশ. ম সাজু, রাজশাহী
১১ জুলাই ২০১৯, ২৩:২৭ | আপডেট: ১১ জুলাই ২০১৯, ২৩:৪৯

রাজশাহীর চারঘাটের হলিদাগাছিতে লাইনচ্যুত তেলবাহী ট্রেনের আটটি বগি লাইনচ্যুত হওয়ার পর উদ্ধার করে রেলওয়ের উদ্ধারকারী দল। ছবি : পিবিএ রাজশাহীর চারঘাটের হলিদাগাছিতে লাইনচ্যুত তেলবাহী ট্রেনের সব কটি বগি উদ্ধার করেছে রেলওয়ের উদ্ধারকারী দল। ফলে প্রায় ২৭ ঘণ্টা পর বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১০টা থেকে রাজশাহীর সঙ্গে সারা দেশের রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়েছে। এর ঘণ্টা খানেক পর রাত ১১টার দিকে সরদহ স্টেশনে আটকা পড়া ঢাকা থেকে আসা সিল্কসিটি এক্সপ্রেস দুর্ঘটনাস্থল অতিক্রম করে রাজশাহীর উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক খন্দকার শহীদুল ইসলাম এবং দুর্ঘটনাস্থল থেকে প্রধান সংকেত প্রকৌশলী অসিম কুমার তালুকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দীর্ঘ প্রায় ২৭ ঘণ্টা ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ থাকায় যাত্রীদের সীমাহীন দুর্ভোগের কথা স্বীকার করে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক খন্দকার শহীদুল ইসলাম যাত্রীদের কাছে আন্তরিকভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। গণমাধ্যমে পাঠানো এক ক্ষুদে বার্তায় তিনি বলেন, ‘রাত ০৯টা ৪৫ মিনিটের দিকে লাইনচ্যুত তেলবাহী ট্রেনটিকে লাইনে উঠানো হয়েছে। পরবর্তী এক ঘণ্টার মধ্যে যাত্রীবাহী ট্রেনের চলাচল শুরু হবে। খারাপ আবহাওয়া, তেলবাহী ট্রেনের পূর্ণ লোড এবং রেল ট্রাকের ভয়াবহ ক্ষতির কারণে ২৫ ঘণ্টা সময় লেগেছে রেল যোগাযোগকে চালু করতে। বিরতিহীন আন্তরিক কাজের মাধ্যমে এই বড় সফলতা অর্জন করা সম্ভব হয়েছে। আমি যাত্রীবাহী ট্রেনের সব যাত্রীর কাছে তাদের দুর্ভোগের জন্য আন্তরিকভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করছি।’

এর আগে বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে খুলনা থেকে ছেড়ে আসা তেলবাহী ট্রেনের আটটি বগি রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার দিঘলকান্দি ঢালানের কাছে লাইনচ্যুত হয়। ফলে রাজশাহীর সঙ্গে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। বুধবার রাত সাড়ে ৯টার পরপরই ঈশ্বরদী থেকে রিলিফ ট্রেন এসে উদ্ধার কাজে যোগ দেয়। বুধবার রাতভর এবং বৃহস্পতিবার সারা দিন ধরে লাইনচ্যুত একটি একটি করে বগি লাইনে তোলা হয়। একই সঙ্গে ছিন্নভিন্ন হয়ে যাওয়া রেললাইন মেরামত করা হয়। তবে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় বৃষ্টি ও বজ্রপাতের কারণে উদ্ধার কাজ বারবার বিঘ্নিত হয়। অবশেষে রাত পৌনে ১০টার দিকে রেললাইন ট্রেন চলাচলের উপযোগী হয়।

এদিকে, দুর্ঘটনার জন্য পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের প্রকৌশল বিভাগের সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুর রশিদকে দায়ী করে তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে বিভাগীয় ট্রান্সপোর্ট অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুনকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কর্তৃপক্ষ। এই কমিটিকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার আব্দুল করিম জানান, বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে বৃহস্পতিবার রাত ১১টা পর্যন্ত রাজশাহী-ঢাকা রুটসহ বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী ট্রেনগুলোর যাত্রা বাতিল করা হয়। রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হবার পর রাত সাড়ে ১১টার পর রাজশাহী থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায় আন্তঃনগর ধূমকেতু ট্রেন।