ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৬

বগুড়ার শেরপুরে ছয় ব্যক্তিকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা একটি সংঘবদ্ধ চক্র, যাঁরা দেশের বিভিন্ন স্থানে গরুবোঝাই ট্রাকে ডাকাতি করতেন।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টায় শেরপুরের রাজাপুর এলাকায় ঢাকা-বগুড়া মহাসড়ক থেকে এই ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ শুক্রবার আদালত তাঁদের কারাগারে পাঠান।

পুলিশের দেওয়া তথ্যমতে আটক ব্যক্তিরা হলেন চট্টগ্রাম জেলার পাঁচলাইশ থানার ফরহাদ হোসেন (২০), বায়েজিদ বোস্তামী থানার মো. মামুন (২২), আকবর হোসেন (৩২), ভোলা জেলার সদর থানার ইসমাইল হোসেন (২০), বগুড়ার শেরপুর উপজেলার লালন হোসেন (২৫) ও ধুনট উপজেলার লিটন হোসেন (২৭)। পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তারের সময় এই ছয়জনের সঙ্গে থাকা একটি ছোট ট্রাকসহ কয়েকটি ধারালো অস্ত্র জব্দ করা হয়েছে।

শেরপুর থানা-পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) এস এম আবদুল গফুর প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনার সময় গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা মহাসড়কে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। টহল পুলিশ বিষয়টি লক্ষ করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানায়। পরে টহল পুলিশের সঙ্গে পুলিশের আরও একটি দল ওই স্থানটি ঘেরাও করে ট্রাক ও অস্ত্রসহ তাঁদের ধরে ফেলে। রাতেই তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। তিনি জানান, জব্দ হওয়া অস্ত্রের মধ্যে একটি করে রামদা, হাঁসুয়া ও ছোরা ছিল।

শেরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবীর প্রথম আলোকে বলেন, গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন, তাঁরা দেশের বিভিন্ন জেলায় গরুবোঝাই ট্রাকে ডাকাতির সঙ্গে জড়িত। তাঁরা সারা দেশে কতগুলো অপরাধের সঙ্গে জড়িত ছিল পুলিশ তা অনুসন্ধান করছে।