ঢাকা, রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

গুলি করে নারীর অঙ্গহানির নির্দেশ, তীব্র সমালোচনা

http://www.prothomalo.com/international/article/1430911/গুলি-করে-নারীর-অঙ্গহানির-নির্দেশ-তীব্র-সমালোচনা
BYগার্ডিয়ান, ম্যানিলা
১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০২:১৫

কমিউনিস্ট নারী বিদ্রোহীদের গোপন অঙ্গে গুলি করে অঙ্গহানি করার নির্দেশ দেওয়ার পর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তে। প্রেসিডেন্টকে নারী-বিদ্বেষী ও পৌরুষপূর্ণ-ফ্যাসিবাদী বলে আখ্যায়িত করেছেন মানবাধিকার ও নারীবাদী কর্মীরা।

গত সপ্তাহে দেশটির ম্যালাকানাং শহরে সাবেক কমিউনিস্ট সেনাদের এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়ার সময় দুতার্তে এ মন্তব্য করেন। সেখানে তিনি নারী গেরিলাদের দমনে এ নির্দেশনা দিয়ে বলেন, এভাবে অঙ্গহানি করা হলে এসব নারী দলে অকার্যকর হয়ে পড়বেন। অনুষ্ঠানে দুই শতাধিক সাবেক কমিউনিস্ট সেনা যোগ দেন।

দুতার্তে বলেন, ‘মেয়রের পক্ষ থেকে নতুন একটি আদেশ এসেছে, “আমরা তোমাদের হত্যা করব না। আমরা শুধু তোমাদের গোপন অঙ্গে গুলি করব।”’ এরপর তিনি বলেন, নারীরা তাঁদের গোপন অঙ্গ ছাড়া দলে ‘অকার্যকর’ হয়ে পড়বেন।

প্রেসিডেন্ট দুতার্তে তাঁর বক্তব্যে ভিসায়ন ভাষার শব্দ ‘বিসং’ উল্লেখ করেন, যার অর্থ যৌনাঙ্গ। গোটা বক্তব্যে তিনি শব্দটি ব্যবহার করেন। যদিও পরে সরকারের আনুষ্ঠানিক বিবৃতি থেকে শব্দটি বাদ দেওয়া হয়েছে। এই শব্দ ব্যবহারের জায়গা খালি রেখে বিবৃতিটি প্রকাশ করা হয়। রেকর্ডে দুতার্তে বক্তব্য দেওয়ার সময় দর্শকসারিতে হাসাহাসির শব্দ শোনা গেছে।

দুতার্তের বক্তব্যে মানবাধিকার ও নারী সংগঠনগুলো ব্যাপক চটেছে। হিউম্যান রাইটস ওয়াচের ফিলিপিনো গবেষক কার্লোস এইচ কন্দে বলেছেন, ‘তিনি (প্রেসিডেন্ট দুতার্তে) নারীদের নিয়ে যে বিদ্বেষী, মর্যাদাহানিকর ও হীনকর বক্তব্য দিয়ে আসছেন, এটা তারই সর্বশেষ সংযোজন।’ তিনি আরও বলেন, ‘এটা (দুতার্তের বক্তব্য) সরকারি বাহিনীকে সশস্ত্র সংঘাতের সময় যৌন সহিংসতায় উৎসাহ জোগায়, যা আন্তর্জাতিক মানবাধিকারের লঙ্ঘন।’