ঢাকা, রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮, ৬ কার্তিক ১৪২৬
BY  অনলাইন ডেস্ক ১৩ জানুয়ারি ২০১৮, ০৯:৩৬ | আপডেট : ১৩ জানুয়ারি ২০১৮, ১০:১১ | অনলাইন সংস্করণ

তানজিনা তিশা ও হাবিব ওয়াহিদ। ছবি-সংগৃহীত বেশিদিন হয়নি। মাত্র ছয় মাস ধরে ভালোবাসার সম্পর্কে আছেন। এর মধ্যেই যাকে ভালোবাসেন সে আপনাকে ভালোভাবে বুঝতে পারে। একইসঙ্গে সে আপনার প্রতিও অনেক যত্নবান। তার কোন ত্রুটি আপনার চোখে ধরা পড়ে না। সময়টা ভালোই কেটে যাচ্ছে। কিন্তু সমস্যা একটাই, আপনার সঙ্গীর বয়স ২৭ বছর। বাসা থেকে তাকে বিয়ে দেওয়ার জন্য পাত্র খুঁজছে। সে আপনাকে বিয়ের জন্য বার বার চাপ দিচ্ছে। কিন্তু তাকে এখই বিয়ে করবেন কিনা এ নিয়ে দ্বিধায় ভুগছেন? ভাবছেন, ‌‘আমি সত্যিই তাকে অনেক পছন্দ ও সম্মান করি। কিন্তু তাকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত এখনই নিতে পারছি না। আমরা আরও কিছু সময় চাই।’

এদিকে প্রতি সপ্তাহে সে আপনাকে বিয়ের জন্য তাড়া দিচ্ছে। এ অবস্থায় কী করবেন তা জানিয়ে দিচ্ছে ‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’-

বিশেষজ্ঞরা বলেন, ‘আপনি যখন কোন সম্পর্কে থাকেন তখন বিয়ের জন্য চাপ সহ্য করা অনেক কঠিন হতে পারে। ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা সাধারণত এই চাপের সম্মুখীন বেশি হয়। আসলে বন্ধু, পরিবার এবং আত্মীয়স্বজনরাই মেয়েদের বিয়ের জন্য চাপ প্রয়োগ করে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এই চাপ আরও বেড়ে যায়। আপনার সঙ্গীও এই চাপের মধ্যে পড়ে বলেই আপনাকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়।’

তারা বলেন, ‘আপনি যদি তাকে অনেকদিন ধরে না চেনেন এবং আপনার যদি মনে হয় এ সময়ে বিয়ে করা ঠিক নয় কিংবা সে আপনার জন্য উপযুক্ত নয় তাহলে বিয়ের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসুন। চাপে পড়ে কখনই বিয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া ঠিক নয়।’

বিশেষজ্ঞরা বলেন, ভালোবাসার সম্পর্কের পরবর্তী ধাপই হলো বিয়ে। এক্ষেত্রে দুজনের মধ্যে বোঝাপড়া থাকা অনেক জরুরি। আপনাদের মধ্যে বোঝাপড়া মজবুত হলে তবেই বিয়ের সিদ্ধান্তে আসুন।

অন্যদিকে পারিবারিক বিয়ের ক্ষেত্রে কিন্তু ব্যাপারগুলো একদমই আলাদা। এ ধরণের বিয়েতে এক কিংবা দুবার সাক্ষাতের সুযোগ মেলে। এক্ষেত্রে পরস্পরকে জানার সুযোগও কম থাকে।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, ‘তাকে বলুন যে আপনি তাকে সম্মান এবং পছন্দ দুটোই করেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত তাকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি। কারণ আপনি যখন কোন সিদ্ধান্ত নেবেন তখন অবশ্যই আপনাকে ভবিষ্যত নিয়ে ভাবতে হবে। সবকিছু ভেবেই তাকে নিয়ে চিন্তা করুন। সেক্ষেত্রে যদি মনে হয় সে আপনার জন্য উপযুক্ত তবেই সামনের দিকে পা বাড়ান।’

‘যদি বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েই থাকেন তাহলে সবচেয়ে ভালো হয় যদি আপনারা দুজনে বসে এ বিষয়ে খোলাখুলি আলোচনা করেন। যদি সে জানে আপনি সত্যিই তাকে বিয়ে করার ব্যাপারে আগ্রহী, তাহলে সে আপনাকে কিছু সময় দিতেও পারে। সেক্ষেত্রে সবসময় তার প্রতি সৎ থাকুন।’

বিশেষজ্ঞরা বলেন, আপনার কখনই এটা করা ঠিক নয় যে, সে আপনাকে বিয়ের জন্য বলে আর আপনি তাকে স্পষ্ট করে কিছুই বলেন না। মনে রাখবেন, আপনি যাকে বিয়ে করবেন সে এমন একজন, যার সঙ্গে আপনি আপনার সুখী মুহূর্তগুলো ভাগ করতে পারেন। আপনার পছন্দের মানুষটি তেমনই একজন কিনা বিয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে তাও পরীক্ষা করুন।