ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
BYশেখ হাসান হায়দার
১২ জুন ২০১৮, ১৩:১৩

গরমে সতেজ থাকার উপায় তো জানা জরুরি। বাইরের ধুলাবালু আর রোদ-বৃষ্টির মাখামাখিতে ধকল তো কম যায় না। তবে সামনে ঈদ, এসবের মধ্যেও ছেলেদের ভাবতে হয় নিজেকে নিয়ে।

ঘর থেকে বের হওয়ার আগেই প্রস্তুতি নিতে হবে। বাইরে যাওয়ার আগে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে কিছুটা সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিতে পারেন। ধুলাবালু থেকে চুলকে রক্ষা করতে পরতে পারেন ক্যাপ কিংবা হ্যাট। এতে রোদের তাপ থেকে মুখও সুরক্ষা পাবে। ঈদের দিন সঙ্গে রোদচশমা রাখা জরুরি। স্টাইলের সঙ্গে রোদ থেকে চোখ বাঁচবে। রাস্তাঘাটে গরমে ঘাম হওয়াটা স্বাভাবিক। শরীরে যাতে ঘামের দুর্গন্ধ না হয় তার জন্য ডিওড্রেন্ট বা সুগন্ধি ব্যবহার করতে পারেন। সতর্ক হতে হবে চুলের কাটেও। অ্যাডোনিস মেকওভার সেলুনের স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ হোসেন বলেন, ‘গরমে ছেলেদের চুল মাঝারি কিংবা ছোট রাখাই ভালো। আর এখন চলছে সাইড ফেড পম্পাডোর, সাইড ফেড স্পাইক, সাইড ট্যাম্প টপার মিডিয়াম কাটগুলো। ছেলেদের এ ধরনের চুলের কাট দেখতে ভালো ও স্বস্তিদায়ক।’

ঈদের পোশাক নির্বাচনে সুতিকে প্রাধান্য দেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন ডিজাইনাররা। সহজে বাতাস চলাচল, ঘাম দ্রুত শুষে নেওয়ার মতো নানা উপকার মিলবে সুতি পোশাকে। গরমে হালকা রঙের কাপড় পরা উচিত। কিন্তু তাই বলে শুধু সাদা কাপড় নয়, সেটা হতে পারে আকাশি, হালকা সবুজ, বাদামি রং। হাফ হাতার পোলো কিংবা গোল গলার টি-শার্টের সঙ্গে জিনসের প্যান্ট হতে পারে স্বস্তিদায়ক। তবে খেয়াল রাখতে হবে প্যান্ট যেন ঢিলেঢালা হয়। গ্যাবার্ডিন প্যান্ট, ঢিলেঢালা কার্গো বা জিনস প্যান্ট পরতে পারেন।

সারা দিনের জন্য স্বস্তিদায়ক জুতা বেছে নিন। দুই ফিতার স্যান্ডেল পরতে পারেন পাঞ্জাবির সঙ্গে। সাইকেল শু, কনভার্স, লোফারও পরতে পারেন। আর বৃষ্টি-কাদায় সামনে ঘেরা রাবারের স্যান্ডেল থেকে ভালো কীই-বা আছে!

বাসায় ফিরে শরীরেরও নিতে হবে কিছুটা যত্ন; নয়তো র‍্যাশ, সানবার্নসহ অ্যালার্জির শিকারও হতে পারেন। বাসায় ফিরে উষ্ণ গরম পানি দিয়ে গোসল করে নরম তোয়ালে দিয়ে শরীর মুছে নিন। এ সময় জীবাণুনাশক সাবান আর কুলিং বডি জেলও ব্যবহার করতে পারেন। এই সময়ে সপ্তাহে তিন-চার দিন চুলে শ্যাম্পু করে কন্ডিশনারও দিতে পারেন।

এ সময় সঙ্গে রাখতে পারেন একটি ছোট ব্যাগ। তাতে ভরে নিতে পারেন ফেস টিস্যু, পানির বোতল, ফেসওয়াশ, সানস্ক্রিন, স্যালাইন ইত্যাদি। আর হ্যাঁ, যদিও ক্যালেন্ডারে বর্ষা আসেনি—বৃষ্টি কিন্তু সে অপেক্ষায় নেই। সঙ্গে একটি পকেট ছাতা কিংবা রেইনকোট রাখা জরুরি। তাতে নিজের সুবিধাই হবে।

গরমে ত্বকের যত্ন নিয়ে হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালের অধ্যাপক চর্ম ও যৌনরোগ বিশেষজ্ঞ প্রফেসর সৈয়দ আফজালুল করিম বলেন, ‘গরমে ছেলেদের সব থেকে বড় সমস্যা ঘামের সাথে ধুলাবালি লেগে অ্যালার্জি হয়ে যাওয়া। সঙ্গে শরীরের বিভিন্ন ভাঁজে ছত্রাকের আক্রমণ। এ থেকে রক্ষা পেতে নিয়মিত গোসল করতে হবে। প্রয়োজনে দুই বার গোসল করুন। এ ছাড়া বাইরে থাকাকালে মাঝেমধ্যেই পরিষ্কার কাপড় দিয়ে শরীরের অনাবৃত অংশ মুছতে হবে।’

অনেক ছেলেই গরমে বাসায় খালি গায়ে থাকতে পছন্দ করেন। তাঁদের আরও বেশি সমস্যা হতে পারে। বাতাসের সঙ্গে থাকা ধুলাবালি তখন শরীরে লেগে ঘামাচির সৃষ্টি করে। তাই পাতলা নরম কাপড় পরার পরামর্শ দিলেন আফজালুল করিম।