ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১২ বৈশাখ ১৪২৭
১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:১০

আরা তাসনিয়া পড়ছেন ঢাকার ইডেন মহিলা কলেজে। স্নাতক (সম্মান) দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। বিষয় প্রাণিবিদ্যা। খালার উৎসাহে একদিন নকশার ‘নতুন আমি’ বিভাগের জন্য ছবি পাঠালেন। কিন্তু ভাবেননি ডাক পেয়ে যাবেন।

১০ ফেব্রুয়ারি নকশার আয়োজনে একরকম ভয় ভয় ভাব নিয়ে সাজতে বসেন। পারসোনার পরিচালক নুজহাত খান তাঁকে একেবারে অন্য রকম করে সাজিয়ে দেন। নুজহাত বলছিলেন, ‘তাসনিয়া এসেছিলেন সাদামাটা, একঘেয়ে সাজে। তাঁকে নতুন আর ভিন্ন সাজ দেওয়ার পর যেন চেনাই যাচ্ছে না। মনে হচ্ছে তাঁর ভেতরে সুপ্ত আত্মবিশ্বাস জেগে উঠেছে।’

প্রমা বলেন, ‘আমি ভেবেছিলাম অনেক দিন হয়ে গেছে ছবি জমা দিয়েছি। হয়তো আর ডাকবে না। হঠাৎ ফোন পেয়ে তাই ভড়কে গিয়েছিলাম। কেমন না কেমন পোশাক আর সাজ হবে, এসব ভাবতে থাকি। কিন্তু মা আর খালা উৎসাহ দিয়েছেন।’চুল: তাসনিয়ার লম্বা–কালো চুলের পেছনে ইউ, আর সামনে লেয়ার কাট দেওয়া হয়েছে। এরপর চুলে গাঢ় বাদামি রং বেজ হিসেবে এবং হালকা বেবি হানি রং হাইলাইট করে ব্যবহার করা হয়েছে। রং করার পর চুল শুকিয়ে সেট করে নেওয়া হয়েছে।মেকআপ: হালকা বেজ মেকআপ করে চোখ আর ঠোঁট রাঙানো হয়েছে তাসনিয়ার। কনট্যুরও একদম হালকা দেওয়া হয়েছে। ধূসররঙা লেন্স বাড়িয়ে দিয়েছে চোখের মায়া।পোশাক: তাসনিয়ার প্রিয় পোশাক শাড়ি। বিশেষ দিনে তো পরা হয়ই। কিন্তু নিয়মিত পরেন থ্রিপিস। পশ্চিমা ধাঁচের পোশাক পরেন না কখনোই। তাই ছবি তোলার জন্য তাঁকে পরানো হয়েছে খানিকটা পশ্চিমা ধাঁচের পোশাক। সাজপোশাকে যেন নতুন এক তাসনিয়া।

গ্রন্থনা: সৈয়দা সাদিয়া শাহরীন

‘নতুন আমি’

প্রিয় পাঠক, নকশা ‘নতুন আমি’ বিভাগের মাধ্যমে আগ্রহী পাঠকদের মেকওভার করে দেওয়া হবে। খ্যাতিমান রূপবিশেষজ্ঞদের হাতে তিনি হয়ে উঠবেন ‘নতুন আমি’। এ বিভাগে নূন্যতম ১৮ বছরের ছেলে ও মেয়েরা অংশ নিতে পারবেন। ছবি ও পূর্ণ নাম, ঠিকানা, ফোন নম্বর পাঠিয়ে দিন নকশায়।

ই–মেইল: naksha@prothomalo.comঠিকানা: নকশা, প্রথম আলো, ২০-২১ প্রগতি ইনস্যুরেন্স ভবন, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।

ই–মেইলের সাবজেক্টে বা খামের ওপর লিখতে হবে ‘নতুন আমি’