ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
BY  নিজস্ব প্রতিবেদক ১২ জুলাই ২০১৮, ১৭:০৮ | আপডেট : ১২ জুলাই ২০১৮, ২০:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

পুরোনো ছবি আগামী জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি আসবে বলে আবারও আশা প্রকাশ করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। আজ বৃহস্পতিবার আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে বরিশাল, সিলেট ও রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

সিইসি বলেন, ‘বিএনপি নির্বাচনে আসবে বলে আশা করি। সবাইকে নিয়েই নির্বাচন হবে। বিএনপি চেয়ারপারসনের বন্দির বিষয়টি আইন-আদালতের বিষয়। ওই ব্যাপারে আমাদের কিছু জানা নেই। আমাদের কিছু করণীয়ও এই ক্ষেত্রে নেই।’

‘নির্বাচনে সবার জন্য সমান সুযোগ তৈরি রয়েছে এবং এই সুযোগ থাকবে’ বলেও আরেক প্রশ্নের জবাবে বলেন তিনি।

আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক প্রশ্নে নূরুল ‍হুদা বলেন, ‘নির্বাচনগুলো সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য দিক-নির্দেশনা দিয়েছি। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিনিধিদের কথা শুনেছি। কীভাবে সমন্বয়ের মাধ্যমে নির্বাচন পরিচালনা করা যায়, তার পরামর্শ দিয়েছি। আমরা আশা করি, তিনটি সিটি করপোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব হবে।’

অন্যান্য সিটি নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে এবার বাড়তি কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে কি না জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘নির্বাচনে বাড়তি কোনো ব্যবস্থার দরকার পড়ে না। কারণ, নতুন কোনো আইন তৈরি হয়নি যে, বাড়তি ব্যবস্থার দরকার হবে। নির্বাচন আইন ও বিধিমালা অনুসারে পরিচালিত হয়। এখানেও সেটা হবে।’

নূরুল ‍হুদা জানান, জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে এই নির্বাচন যাতে প্রশ্নবিদ্ধ না হয়, কাজেই সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য যা যা করণীয় তারা তা করবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। আমাদের নির্দেশনা তারা প্রতিপালন করবেন।

সিইসি জানান, সিটিগুলোতে নির্বাচনের পরিবেশ পরিস্থিতি সঠিক রয়েছে বলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিনিধিরা আমাদের জানিয়েছেন। সেখানে কোনো ধরনের ঝুঁকি বা আশঙ্কার বিষয় নেই।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘নির্বাচন পরিচালনা করতে গেলে অভিযোগ আসতেই পারে। তবে অভিযোগ সঠিক কি না তা দেখতে হবে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রমাণ করতে হবে।’

এর আগে সিইসির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে অন্যান্য কমিশনার, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিনিধি, নির্বাচন কমিশন সচিব, তিন সিটির রিটার্নিং কর্মকর্তাসহ অন্যরা অংশগ্রহণ করেন।