ঢাকা, শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৭

মেয়েকে দেখতে গিয়ে গণপিটুনিতে নিহত সিরাজ ছিলেন বাক প্রতিবন্ধী

https://www.ppbd.news/national/116145
BYনারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশ:  ২২ জুলাই ২০১৯, ০২:৩৭ | আপডেট : ২২ জুলাই ২০১৯, ০২:৪১

নারায়ণগঞ্জের সিদ্বিরগঞ্জে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে নিহত সিরাজ (৩০) ছিলেন বাক প্রতিবন্ধী। আয়-উপার্জন কম থাকায় আট মাস আগে একমাত্র মেয়েকে নিয়ে তার স্ত্রী অন্য একজনের সঙ্গে পালিয়ে যায়। মেয়ের টানে গোপনে তাকে দেখতে মিজমিজির পাগলাবাড়ির সামনে গিয়েছিলেন সিরাজ। বোবা মুখের অস্ফুট কণ্ঠে হামলাকারীদের তিনি বলতে চেয়েছিলেন ওই এলাকায় কেন এসেছিলেন। গুজবে উন্মত্ত জনতা তা বোঝার চেষ্টা না করেই সিরাজকে পিটিয়ে হত্যা করে।

শনিবার সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজিতে স্থানীয় লোকজন ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে সিরাজকে হত্যার পর নিহতের স্বজনদের কাছ থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

নিহতের ছোট ভাই আলম সাংবাদিকদের বলেন, আট মাস আগে অন্য একজনের সঙ্গে সিরাজের স্ত্রী পালিয়ে যান। এরপর থেকে প্রতিদিন মেয়ের সন্ধানে ছিলেন তিনি। দুই মাস আগে মিজমিজি আলামিন নগর এলাকায় কাজ করতে গিয়ে রাস্তায় মেয়েকে দেখতে পান সিরাজ। সেই থেকে ৩-৪ দিন পরপর সকালে স্কুলে যাওয়ার রাস্তায় মেয়েকে দেখতে যেতেন।

তিনি আরও জানান, শনিবার নিজের কাছে টাকা না থাকায় একটি মোবাইলের দোকান থেকে ১০০ টাকা ধার করে মেয়ের জন্য বিস্কুট, চিপস ও চুড়ি নিয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

আলমের অভিযোগ, সিরাজের স্ত্রী তার বর্তমান স্বামীকে দিয়ে ‘মানুষকে ভুল বুঝিয়ে সিরাজকে হত্যা করিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে রায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদও বলেছেন, বাক প্রতিবন্ধী ওই যুবককে ‘ছেলেধরা’ গুজব ছড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে। তিনি বলেন, যারা এই গুজব ছড়াচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতোমধ্যে কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।