ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৭
BYঅনলাইন ডেস্ক
১২ জুন ২০১৯, ১০:৩৬

চলতি বছরের মধ্যে বছরের শীর্ষ স্মার্টফোন নির্মাতা হওয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছিল চীনা প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। তবে মার্কিন চাপে পড়ায় আপাতত তাদের ওই লক্ষ্য পিছিয়ে দিতে হচ্ছে। তাই এ বছর আর বছরের শীর্ষ স্মার্টফোন নির্মাতার আসনে বসা হবে না হুয়াওয়ের। প্রতিষ্ঠানটির একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা গতকাল মঙ্গলবার বলেছেন, বছরের চতুর্থ প্রান্তিকে শীর্ষস্থানে যাওয়ার লক্ষ্য থাকলেও এখন তার চেয়ে সময় বেশি লাগবে।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, হুয়াওয়ে কনজুমার বিজনেস গ্রুপের প্রধান কৌশলগত কর্মকর্তা শাও ইয়াং বলেন, ‘আমরা এক নম্বর হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু এখন প্রক্রিয়াটিতে বাড়তি সময় লাগবে।’ অবশ্য এর বিস্তারিত কারণ উল্লেখ করেননি তিনি।

সাংহাইতে সিইএস এশিয়া টেকনোলজি শো উপলক্ষে শাও বলেন, তাঁরা বর্তমানে দৈনিক পাঁচ থেকে ছয় লাখ স্মার্টফোন বিক্রি করছেন।

গত মে মাসে মার্কিন সরকার হুয়াওয়েকে ‘কালো তালিকাভুক্ত’ করে। যুক্তরাষ্ট্র অভিযোগ করছে, হুয়াওয়ে তাদের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি আর বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে পীড়নের শিকার হচ্ছে তাদের দেশের কোম্পানি। হুয়াওয়েকে কালো তালিকাভুক্ত করার পর সরকারি অনুমোদন ছাড়া হুয়াওয়ের পক্ষে মার্কিন প্রযুক্তি যন্ত্রাংশ কেনার পথ বন্ধ হয়ে যায়। যদিও তিন মাসের জন্য ওই আদেশ কিছুটা শিথিল করা হয়েছে।

হুয়াওয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞার প্রভাব ইতিমধ্যে বিশ্বের প্রযুক্তি খাতে পড়তে শুরু করেছে। বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের সঙ্গে ব্যবসা গুটিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

জানুয়ারিতে স্মার্টফোন বিশ্বে শীর্ষস্থানে যাওয়া ঘোষণা দিয়েছিল হুয়াওয়ে। যুক্তরাষ্ট্রের বাজার বাদেই তারা বিশ্বে এক নম্বর হতে পারবে। বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান গার্টনার জানিয়েছে, বছরের প্রথম প্রান্তিকে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠান স্যামসাংয়ের পরেই জায়গা করে নিয়েছিল হুয়াওয়ে।

বাজার বিশ্লেষকেরা বলছেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়ে হুয়াওয়ের স্মার্টফোন বিক্রি এক–চতুর্থাংশ কমে যাবে। এমনকি বিদেশের বাজারগুলো থেকে স্মার্টফোন সরিয়ে নিতে হতে পারে।