ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

সংসারে শান্তি বজায় রেখে সুখী হওয়ার কয়েকটা টিপস

http://deho.tv//সংসারে-শান্তি-বজায়-রেখে-স/
BYBy deho.tv
1 month and 6 days ago
People Also Read
গোসলের যেসব ভুলে ত্বকের ক্ষতিযেসব অভ্যাসে চুলের ক্ষতি হয়কেন হাত দিয়ে খাবেন?পাবলিক টয়লেট ব্যবহারে মাথায় রাখুনপকেটে মোবাইল রাখলেই ‘সর্বনাশ’সাত খাবারে কমবে চুল পড়া Your RatingUser Rating: 0.3 ( 1 votes ) কষ্টকর দু:সহ স্মৃতি যদি মন থেকে মুছে ফেলতে না পারেন তাহলে কখনও সুখী হতে পারবেন না। আপনার ভালোবাসা সমৃদ্ধ জীবনে যখন খুব কষ্ট, খারাপ সময় এসেছে তখন আপনি নিজেই জানেন কিভাবে সেটা সামলিয়ে সামনের পথে এগিয়ে গেছেন। যারা সুখী দম্পতি তারা পিছনের কষ্ট সরিয়ে রাখার শক্তি অর্জন করে। আমরা জানি যে সম্পর্কের মূল সূত্রই হচ্ছে ‌`forget and forgive’ অর্থাৎ ভুলে যাওয়া এবং ক্ষমা করা। অতীতের কষ্ট ভুলে ভবিষৎকে গুরুত্ব দেওয়াই সুখী হওয়ার মূল মন্ত্র। সেক্ষেত্রে আমরা সংসারে শান্তি বজায় রেখে সুখী হওয়ার কয়েকটা টিপস তুলে ধরতে পারি।১. সুখী দম্পতিরা একটা টিম যারা সুখী তারা পরিবারকে একটা টিমের মত করে দেখে। ছোট-খাট ব্যাপার নিয়ে নিজেদের জীবনটা অতিষ্ট করে তোলে না। আধুনিক যুগে সবাই ব্যস্ত তাই সংসারের কাজকর্ম গুলো স্বামী-স্ত্রী দুজনেই ভাগাভাগি করে করলে যেমন আনন্দ পাওয়া যায় তেমনি ভালোবাসাও অটুট থাকে।২. অতীতকে বর্তমানে নয় অতীতের কোনও স্মৃতি টেনে বর্তমানের সঙ্গী বা সঙ্গীনীকে যদি উপহাস করা হয় তাহলে যেকোন সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই বিশেষজ্ঞদের মত অতীত নিয়ে ঘাটাবেন না। আপনার বর্তমান অবস্থায় যদি আপনার পার্টনার সুখী থাকে তবে দুজনেই সেটা এনজয় করুন।৩. মাঝে মাঝে ভালোবাসার বার্তা দিন স্বামী-স্ত্রী যদি মাঝে মাঝে দুজনের মধ্যে ভালোবাসার বার্তা আদান প্রদাণ করে তাতে তো প্রেম বাড়বে বৈ কমবে না। তাই দুজনেই প্রেম বার্তা পাঠাতে ভুলবেন না, এই কাজটাও সুখী দম্পতিরা করে থাকেন।৪. সম্মান করা সুখী দম্পতির অন্যতম দায়িত্ব হচ্ছে দুজনের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ থাকা ও সম্মান করা। কখনই এমন কিছু না বলা যাতে দুজনের একজন অসম্নানিত বোধ করেন। বস্তুত ভালোবাসা তৈরীই হয় এই শ্রদ্ধাবোধ থেকে। বাবা-মার মধ্যে শ্রদ্ধা থাকলে তাদের সন্তানরাও জানতে পারবে কিভাবে শ্রদ্ধা করতে হয়। তাতে আপনি পরবর্তী একটা সুন্দর প্রজন্ম তৈরী করতে পারবেন।
৫. দুজনার শ্বশড়বাড়ি সুখী দম্পতিরা জানে কিভাবে তাদের শ্বশুড়বাড়িকে আপন করে নিতে হয়। কিন্তু আমাদের দেশের প্রক্ষাপটে একজন নারীর ক্ষেত্রে বেশি ভূমিকা নিতে হয়, সেখানে স্বামী যদি তাকে সহযোগিতা করে তখন সুখী হওয়ার পথটা সুগম হয়।

Share this:

শনি ১২ মে, ২০১৮
গরমে সাজের আগে পরে
Deho TV
শনি ১২ মে, ২০১৮
চুল পড়ে তো টনক নড়ে
Deho TV
বুধ ০৯ মে, ২০১৮
ত্বকের যত্নে এখন
Deho TV