ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৬
BYক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকাটাইমস

বুন্দেসলিগায় সবচেয়ে জমজমাট দ্বৈরথ ‘ডার ক্লাসিক’ যা জার্মান ক্লাসিক নামেও সুপরিচিত। জার্মানির ক্লাব ফুটবলের মর্যাদার এই লড়াইয়ে বরাবরই আধিপত্য ছিল বায়ার্ন মিউনিখের। গত ছয় মৌসুমের পরিসংখ্যানও তাই বলে। কিন্তু টানা ছয়বারের চ্যাম্পিয়ন দলটি নাকি এবার বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে ফেভারিট নয়! আজ সিগনাল ইনা পার্কে তারা খেলতে নামবে আন্ডারডগ হিসেবে। কথাটা বলেছেন খোদ বায়ার্ন সভাপতি উলি হোনেস।

ইয়ুর্গেন ক্লপের অধীনে ২০১০-১১ ও ২০১১-১২ মৌসুমে সোনালি সময় পার করেছিল ডর্টমুন্ড। ওই দুই মৌসুমে বুন্দেসলিগায় চারটি ম্যাচের সবকটিতেই জিতেছিল তারা। এরপর হলুদ জার্সিধারীদের আধিপত্য কমে আসে। পরের ছয় মৌসুমে মাত্র দুটিতে জিতেছে দলটি। সে হিসেবে তো আজকের ম্যাচে বায়ার্নকেই ফেভারিট বলা যায়! কিন্তু হোনেস কেন নিজেরে আন্ডারডগ বলছেন? পয়েন্ট টেবিলের দিকে তাকালেই তার কথার যৌক্তিকতা খুঁজে পাওয়া যায়।

১০ ম্যাচে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে ডর্টমুন্ড, চার পয়েন্ট পিছিয়ে দুই নম্বরে বরুসিয়া ম’গ্লাডবাখ। তারে চেয়ে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে তিনে বায়ার্ন! নামের পাশে দুটি হারও আছে। অপরদিকে, এখন অবধি কোনো ম্যাচে পরাজিত হয়নি ডর্টমুন্ড। ঘরের মাঠে তারে পারফরম্যান্স দুর্দান্ত। এসব কি বিবেচনায় তাই হোনেস বলেছেন, ‘ডর্টমুন্ডে তিন পয়েন্ট জেতার জন্য যাচ্ছেন- এই কথা বলতে পারবেন না আপনি। চলতি মৌসুমটা দারুণ কাটছে তাদের। এতে কোনো সন্দেহ নেই। কাজেই এবার আর আমরা ফেভারিট হিসেবে খেলতে যাচ্ছি না।’

ইয়ুপ হেইঙ্কেসের বিদায়ের পর চলতি মৌসুমে নিকো কোভাচের অধীনে খেলছে বায়ার্ন। হোনেস মনে করছেন, তরুণ এই কোচের ফুটবল র্শনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে কিছুটা সময় প্রয়োজন খেলোয়াড়দের, ‘সবসময় নেতিবাচক ধারণা পোষণ করা উচিত নয়। মৌসুম কেবল শুরু। আমাদের ধৈর্যশীল হতে হবে।’

ডার ক্লাসিকের প্রস্তুতিটা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এইকের বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানের জয়ে সেরে নিয়েছে বায়ার্ন। তবে কোভাচ মনে করছেন, ডর্টমুন্ডকে হারাতে আরও ভালো পারফরম্যান্স উপহার দিতে হবে, ‘কোনো কিছুই সহজে ধরা দিচ্ছে না। কাজেই আমাদের পরিশ্রম করতে হবে। আমাদের অবশ্যই ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে সেরাটা খেলা প্রয়োজন।’

লুসিয়ান ফেভারের ডর্টমুন্ডের তরুণ লটি রীতিমতো উড়ছে এখন। তবুও দলের বেলজিক মিডফিল্ডার আলেক্স উইটসেল নিজেদের খুব বেশি এগিয়ে রাখছেন না, ‘বায়ার্ন বায়ার্নই। তারা সবসময়ই শক্তিশালী। তাদের চলতি মৌসুমের শুরুটা অন্য মৌসুমের তুলনায় খুব একটা ভালো হয়নি। কাজেই আমাদের এই সুবিধাটা কাজে লাগতে হবে। এরপরও ম্যাচটা কঠিনই হবে।’

অবশ্য উইটসেল জানিয়েছেন, ঘরের মাঠে অন্য সময়ের চেয়ে এবার কিছুটা ভালো অবস্থানে থাকবে ডর্টমুন্ড। নিজেদের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী এই তারকা, ‘নিজেদের ডেরায়, গ্যালারিভর্তি র্শকের সামনে এবং আমারে লের যে সক্ষমতা তাতে আমরা তারে হারাতে পারি। সবকিছুই সম্ভব।’

বায়ার্ন-ডর্টমুন্ড ম্যাচের আগে মাঠে নামবে ওয়েডার ব্রেমেন-ম’গ্লাডবাখ। এই ম্যাচে ম’গ্লাডবাখ জয় পেলে পয়েন্ট টেবিলের দুই নম্বর স্থানটা আরও পাকাপোক্ত করবে দলটি। শীর্ষ স্থানধারী ডর্টমুন্ডের সঙ্গেও ব্যবধানটা কমে আসবে।

পরিসংখ্যানে জার্মান ক্লাসিক

মোট ম্যাচ: ১১৯

বায়ার্নের জয়: ৫৬

ডর্টমুন্ডের জয়: ৩০

ড্র: ৩৩

বুন্দেসলিগা মুখোমুখি: ৯৮

বায়ার্নের জয়: ৪৫

ডর্টমুন্ডের জয়: ২৪

ড্র: ২৯

(ঢাকাটাইমস/৯ নভেম্বর/এসইউএল)