ঢাকা, সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১৬ চৈত্র ১৪২৬
BYক্রীড়া ডেস্ক

স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে অনেকটাই ব্যাকফুটে চলে গেছে সফরকারী জিম্বাবুয়ে। মুমিনুল হকের শতকের সঙ্গে মুশফিকুর রহিমের ডাবল সেঞ্চুরিতে ২৯৫ রানে এগিয়ে থেকে বাংলাদেশের ইনিংস ঘোষণার পর নাঈম হাসানের স্পিন বিষে দুই উইকেট হারিয়ে দিন শেষ করেছে সফরকারীরা। চালকের আসনে থাকা বাংলাদেশ শিবির তাই ইনিংস ব্যবধানে জয়ের সম্ভাবনা দেখছে।

হোমগ্রাউন্ড অব ক্রিকেট খ্যাত মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ২৬৫ রানে গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। আর আজ সোমবার শেষ বিকালে দুই ইউকেট হারিয়ে তুলেছে ৯ রান। আগামীকাল মঙ্গলবার চতুর্থ দিনে ২৮৬ রানে পিছিয়ে থেকে মাটে নামবে জিম্বাবুয়ে।

এর আগে ম্যাচের দ্বিতীয় দিন নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩ উইকেট হারিয়ে ২৪০ রান সংগ্রহ করে টাইগাররা। তৃতীয় দিনে আজ মুমিনুল ৭৯ এবং মুশফিক ৩২ রান নিয়ে আবার ব্যাট করতে নামেন।

দিনের শুরুতেই ব্যক্তিগত সেঞ্চুরি তুলে নেন মুমিনুল। ১৫৬ বলে ক্যারিয়ারের নবম এবং অধিনায়ক হিসেবে প্রথম শতক পূরণ করা এই ব্যাটসম্যান ১২টি চার হাঁকান। ৩৫২ রানে লাঞ্চ বিরতিতে যায় বাংলাদেশ। দুপুরের খাবার সেরে এসে সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন মুশফিকও। ১০০ রানের কোটা পূরণ করতে ১৬০টি বল ব্যবহার করেন তিনি।

এরপর খানিক ছন্দপতন হয় বাংলাদেশ শিবিরে। ১৩২ রানে থাকা মুমিনুল আউট হলে ভাঙে চতুর্থ উইকেটে দুজনের ২২২ রানের পার্টনারশিপ। খানিক বাদে মিঠুনও ১৭ রানে সাজঘরে ফিরলে মুশফিককে সঙ্গ দেন লিটন দাস। টেস্ট মেজাজে ব্যাটিং করা লিটন নিজের অর্ধশতকের দেখা পেয়েছেন ৯৩ বলে।

ফিফটির স্বাদ পাওয়া লিটন ৫৩ রানে সাজঘরে ফেরার পর আসে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। প্রথম এবং একমাত্র বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে টেস্টে তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নেন মুশফিক। একই সঙ্গে তামিম ইকবালকে টপকে বাংলাদেশের হয়ে এ ফরম্যাটে সর্বোচ্চ রানের মালিক বনে যান ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান।

মুশফিকের দ্বিশতকের পর ৬ উইকেটে দলীয় ৫৬০ রানে নিজেদের ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ দল। মুশফিক ২০৩ এবং তাইজুল ইসলাম অপরাজিত থাকেন ১৩ রান নিয়ে।

শেষ বিকেলে বাংলাদেশ থেকে ২৯৫ রানে পিছিয়ে থেকে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামে জিম্বাবুয়ে। যেখানে ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই সফরকারী শিবিরে আঘাত হানেন টাইগার স্পিনার নাঈম হাসান। শূন্য রানে ফেরান ওপেনার মাসাভাউরেকে। পরের বলেই নাঈমের শিকার টিরিপানো।

পরে দলকে আর কোনো বিপদ হতে না দিয়ে ৯ রানে দিনের খেলা শেষ করে জিম্বাবুয়ে বাংলাদেশ থেকে ২৮৬ রান পিছিয়ে। কাসুজা ৮ এবং ১ রান নিয়ে আগামীকাল ম্যাচের চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করবেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে: প্রথম ইনিংস- ২৬৫/১০

আরভিন ১০৭, মাসাভাউরে ৬৪, চাকাভা ৩০; নাঈম ৪/৭০, রাহী ৪/৭১, তাইজুল ২/৯০।

দ্বিতীয় ইনিংস- ৯/২

কাসুজা ৮*, টেলর ১*; নাঈম ৪/২।

বাংলাদেশ: প্রথম ইনিংস ৫৬০/৬ ডিক্লেয়ার

মুশফিক ২০৩*, মুমিনুল ১৩২, শান্ত ৭১; লোভু ২/১৭০, তাসুমা ১/৮৫।

(ঢাকাটাইমস/২৪ফেব্রুয়ারি/মোআ)