ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

করোনার মধ্যেই পার্টি, ক্ষমা চাইলেন ফুটবলার

https://www.dhakatimes24.com/2020/04/06/159200/করোনার-মধ্যেই-পার্টি-ক্ষমা-চাইলেন-ফুটবলার
BYক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকাটাইমস

জ্যাক গ্রিলিচের পর এবার কাইল ওয়াকার। লকডাউন অমান্য করেই গত সপ্তাহের শেষে দেদার পার্টি করার কারণে ওয়াকারের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ এনেছে তাঁর ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি। চাপের মুখ এবার অনুরাগীদের কাছে ক্ষমা চাইলেন ইংরেজ ফুটবল তারকা।

গত সপ্তাহে নিজের বাড়িতে দুই যৌন কর্মীর সঙ্গে পার্টিতে মত্ত হন ম্যানসিটি রাইট ব্যাক। সরকারি নির্দেশ উপেক্ষা করে ওয়াকারের এই কাজ মোটেই ভালোভাবে নেয়নি তাঁর ক্লাব। বিভিন্ন সংবাদপত্র, ট্যাবলয়েডে ওয়াকারের কান্ডকারখানা প্রকাশ পেতেই তাঁর বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ আনে সিটি। প্রয়োজনে তাঁকে জরিমানাও করার কথাও জানানো হয়।

সব দেখেশুনে বেজায় চাপের মুখে এক বিবৃতিতে কাইল জানিয়েছেন, ‘আমি গত সপ্তাহে যেটা করেছি সেটা নিয়ে সংবাদমাধ্যম, ট্যাবলয়েডগুলোতে আমার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে অনেক লেখেলেখি হয়েছে। তাই আমি জনসাধারণের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।’

ওয়াকারের আরও সংযোজন, ‘পেশাদার ফুটবলার এবং একজন রোল মডেল হিসেবে আমার কিছু দায়িত্ব থেকে যায়। তাই আমার পরিবার, বন্ধু-বান্ধব, আমার ক্লাব, অসংখ্য অনুরাগীদের মাথা নীচু করার জন্য আমি ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।’

ইংল্যান্ডের হয়ে ৪৮টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে প্রতিনিধিত্ব করা ওয়াকারকে নিয়ে বলতে গিয়ে তাঁর ক্লাব জানিয়েছে, ‘ম্যানচেস্টার সিটি কর্তৃপক্ষ কাইল ওয়াকারের লকডাউন এবং সোশ্যাল ডিস্টেন্সিং ভঙ্গ করার বিষয়টি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল। ফুটবলাররা সারা বিশ্বের রোল মডেল। আমাদের ফুটবলার এবং সাপোর্ট স্টাফরা কোভিড-১৯ এর প্রকোপ রুখতে নিঃস্বার্থ পরিশ্রম করে চলেছে। কাইলের এই ঘটনা তাদের সেই প্রচেষ্টাতে ধাক্কা দিয়েছে।’

ম্যানসিটি কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে আরও জানানো হয়েছে যে ঘটনায় তারা ভীষণই হতাশ। তবে কাইলের বিবৃতি ও ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টিও তারা জেনেছে। তাই ক্লাব কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কাইলের ঘটনা নিয়ে তদন্ত কিংবা আলোচনা প্রসঙ্গে সমস্ত বিষয়গুলি মাথায় রাখা হবে।

(ঢাকাটাইমস/৬ এপ্রিল/এসইউএল)