ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৭

বোমা ফাটালেন কুক : ওয়ার্নার তাকেও বলেছিলেন বল টেম্পারিং করতে!

https://www.jagonews24.com/sports/cricket/526164
BYস্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক প্রকাশিত: ০৪:০৫ পিএম, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

গত বছর কেপটাউনের নিউল্যান্ডসে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির কারণে ১২ মাস ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ ছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার, স্টিভেন স্মিথ। ৯ মাস নিষিদ্ধ ছিলেন ক্যামেরন বেনক্রফট। সেই নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ইতিমধ্যে বিশ্বকাপেও খেলে ফেলেছেন ওয়ার্নার-স্মিথ। টেস্টে এই দুইজনের সঙ্গে ফিরেছেন ক্যামেরন বেনক্রফটও।

কিন্তু হঠাৎ করেই আবার বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির ধাক্কা লাগলো ওয়ার্নারের গায়ে। নিজের লেখা আত্মজীবনীতে ইংল্যান্ডের সাবেক টেস্ট অধিনায়ক এবং নাইটহুড উপাধিপ্রাপ্ত অ্যালিস্টার কুক অভিযোগ করেছেন, একদা ওয়ার্নার তাকে বল টেম্পারিং করার জন্য উদ্বুদ্ধ করেছিলেন। বলেছিলেন, বলে দ্রুতগতিতে ক্ষয় এনে বলের আকৃতি পরিবর্তন করতে হাতের মধ্যে পট্টি বাধার জন্য।

তবে কোনো টেস্টে নয়, একটি প্রথম শ্রেণির ম্যাচে কুককে এই বুদ্ধি দিয়েছিলেন ওয়ার্নার। গত ৫ সেপ্টেম্বর অ্যালিস্টার কুকের ‘দ্য অটোবায়োগ্রাফি’ প্রকাশিত হয়। সেখানে ২০১৭-১৮ মৌসুমে অ্যাশেজ সিরিজের একটি ঘটনাও লেখেন কুক। যে সিরিজটি জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। তখন অসিদের অধিনায়ক ছিলেন স্টিভেন স্মিথই।

ঘটনাটা ঘটেছিল অস্ট্রেলিয়া অ্যাশেজ জয়ের পর তাদের সঙ্গে ইংলিশ ক্রিকেটাররাও বিয়ার পান করে উদযাপন করছিল। কুক লিখেন, ‘কয়েকটি বিয়ার নিয়ে অ্যাশেজ জয় উদযাপন করছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। তখন বলছিলেন, একটি প্রথম শ্রেণির ম্যাচে তিনি হাতের মধ্যে যে পট্টি বেধেছিলেন, সেখানে এমন কিছু পাদর্থ মিশিয়েছিলেন, যাতে করে দ্রুত বলের আকৃতিতে পরিবর্তন আনা যায়।’

কুক এরপর এই ঘটনা নিয়ে আরো লেখেন, ‘আমি তৎক্ষনাত স্টিভেন স্মিথের দিকে তাকালাম। তিনি বলছিলেন, ওহ!!! তোমার (ওয়ার্নার) উচিৎ নয় এসব এখানে বলার।’

সেই ওয়ার্নারই কেপটাউনের নিউল্যান্ডসে বল টেম্পারিং করার জন্য সেন্ড পেপার ব্যবহার করিয়েছিলেন ক্যামেরন বেনক্রফটকে দিয়ে। টিভি ক্যামেরায় ধরা পড়ার পর তোলপাড় শুরু হয়ে যায় এবং প্রমাণ হয়, এর সঙ্গে জড়িত স্মিথ-ওয়ার্নার এবং বেনক্রফট। শেষ পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞার শাস্তি হয় তাদের।

১৬১ টেস্ট খেলা অ্যালিস্টার কুক অবসর গ্রহণ করেছেন গত বছর। ৪৬.৯৫ গড়ে তিনি রান করেছেন ১২৪৭২। সেঞ্চুরি করেছেন ৩৩টি। ৩৪ বছর বয়সেই পেয়ে গেলেন নাইটহুড উপাধি।

সেই কুকই তার সেরা তিন ব্যাটসম্যানের মধ্যে শচিন টেন্ডুলকারকে রাখেননি। একই সঙ্গে উচ্চসিত প্রশংসা করেছেন স্টিভেন স্মিথের। তাকে খামখেয়ালি ব্যাটসম্যান হিসেবে চিহ্নিত করলেও কুক বলছেন স্মিথ হচ্ছেন একজন এক্সট্রা অর্ডিনারি ব্যাটসম্যান। স্মিথ লিখেছেন, ‘তাকে দেখলে মনে হবে না যে সর্বকালের সেরাদের মধ্যে একজন ব্যাটসম্যান। তবে তার খেলা ভিন্নরকম। আমি সব সময়ই লারা, পন্টিং এবং ক্যালিসকে বিশ্বের সেরা তিন ব্যাটসম্যান হিসেবে দেখে এসেছি। স্মিথ (৩০) আমার চেয়ে ছোট। কিন্তু সে যা অর্জন করেছে, তা অবিস্মরনীয়। সে আবারও দেখাচ্ছে, ব্যাটসম্যান হিসেবে কি করা সম্ভব।’

আইএইচএস/পিআর