ঢাকা, বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
BYক্রীড়া প্রতিবেদক
০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১:২৫

বিকেএসপিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে অসাধারণ খেলেছেন তামিম ইকবাল। ওপেনিং জুটিতে তিনি অনেক দিন ধরেই ‘অটোমেটিক চয়েস’। তামিমের সঙ্গে উদ্বোধনী জুটিতে সঙ্গী কে হবেন, এই প্রশ্ন যখন বাতাসে, আজ প্রস্তুতি ম্যাচে সেঞ্চুরি করে সৌম্য যেন জানালেন, তাঁকেই আসলে দরকার! তামিম ইকবাল ঝড় তুলেছেন, ‘সৌম্য’ থাকেননি সৌম্য সরকারও! বিকেএসপিতে আজ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে তামিমের দিনে শেষ বিকেলে দুর্দান্ত খেলেছেন সৌম্যও। ৭৫ বলে ৭ চার ও ৬ ছক্কায় ১০৩ রানে অপরাজিত থেকে ছেড়েছেন মাঠ। ঝোড়ো এই সেঞ্চুরি দিয়ে সৌম্য যেন বোঝালেন, ওপেনিং জুটিতে তামিমের সঙ্গী হিসেবে তাঁকেই দরকার! ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৩৩১ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে তামিম ও ইমরুল কায়েসের ব্যাটে দারুণ সূচনা করেছে বিসিবি একাদশ। ৮১ রানের ওপেনিং জুটি ভেঙে ইমরুল ২৭ রান ফিরে গেলেও সৌম্যকে নিয়ে ভালো গতিতে রান তাড়া করেছেন তামিম। ২৩তম ওভারে দলকে ১৯৫ রানে রেখে তামিম ফিরলেও বাকি দায়িত্ব পালন করেছেন সৌম্য। তামিমের দেখানো পথেই হাঁটার চেষ্টা করেছেন বলে ম্যাচ শেষে জানালেন সৌম্য, ‘তামিম ভাই যেভাবে চোট থেকে ফিরে ব্যাটিং করছিলেন, মনে হচ্ছিল না তিনি দলের বাইরে ছিলেন। তাঁর আত্মবিশ্বাস দেখে অন্য প্রান্ত থেকে আমারও মনে হয়েছিল যে যেহেতু তামিম ভাই ভালো করছেন, আমি যদি তাঁকে সমর্থন দিয়ে যেতে পারি, আরও সহজ হবে রান করা। দুই পাশ থেকে যদি রান আসতে থাকে, স্কোর দ্রুত বড় হয়। আমি সেটাই চেষ্টা করেছি ওনাকে সমর্থন দিয়ে যাওয়ার। তিনি আমাকে কিছু কথা বলছিলেন, যেগুলো আমাকে অনেক কাজে দিয়েছে। একটা ভুল শট খেলেছি। তিনি একটি কথা বলেছেন, তখন আরও মাথা খুলেছে। উইকেটের মধ্যে কিছু কিছু কথাও আসলে অনেক কাজে দিয়েছে।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের দেওয়া ৩৩১ রানের লক্ষ্যে নেমে ৪১ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে অনায়াসেই ৩১৪ রান তোলা। সৌম্য বললেন, আসন্ন ওয়ানডে সিরিজে এটি কাজ করবে বাড়তি টনিক হিসেব, ‘এই ধারাবাহিকতা যদি সবাই ধরে রাখতে পারি, এই আত্মবিশ্বাসটা যদি সবার মধ্যে থাকে, তাহলে সাহায্য করবে পরের ম্যাচগুলোয়। প্রস্তুতি ম্যাচে আমরা ৩০০–এর ওপরে রান তাড়া করতে গিয়েছি, প্রায় আট-নয় ওভার বাকি ছিল, এর মধ্যে ম্যাচটি শেষ করতে পেরেছি। মূল ম্যাচেও যদি আমরা এভাবে ভালো শুরু করতে পারি, ৩০০ রান কোনো ব্যাপার হবে না।’ প্রস্তুতি ম্যাচে তামিম যেভাবে ব্যাটিং করেছেন, বাংলাদেশের জন্য বাড়তি অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করছে। ১৫ সেপ্টেম্বর এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচেই চোটে পড়ে ছিটকে গিয়েছিলেন দেশসেরা ওপেনার। সেই ম্যাচে ভাঙা হাত নিয়ে যে ব্যাটিং করেছেন তামিম, বাংলাদেশ ক্রিকেটের চির উজ্জ্বল ছবি হয়ে আছে সেটি। চোট থেকে সেরে ওঠার প্রায় আড়াই মাস পর কোনো ম্যাচ খেলতে নামলেন তামিম। অথচ যেভাবে ব্যাট করেছেন, এত দিন যে মাঠের বাইরে ছিলেন, তা বোঝার কোনো উপায় রাখেননি। সৌম্যের কাছ থেকে তামিমের প্রশংসা তাই পাওনা, ‘আমার কাছে তাঁর ব্যাটিং দেখে মনে হয়নি যে তিনি অনেক দিন বাইরে ছিলেন। দেখে খুব ভালো লেগেছে যে তিনি অনেক আত্মবিশ্বাসী। একটি ভালো শুরু পেয়েছেন। এমন শুরু সব সময় হয় না। চাইব যে এমন শুরু সব সময় তিনি দিতে পারবেন। এটি বাংলাদেশের জন্যও ভালো, তাঁর জন্যও ভালো।’